অনেকক্ষণ জুতা পরে থাকার ফলে পা ঘেমে দূরগন্ধ সৃষ্টি হয়। ফলে অন্য জনের তো বটেই নিজেরও বিরক্তি হয়। বিশ্রী একটা অবস্তা সৃষ্টি হয়, মেজাজ বিগরে যায়।

ধরুন আপনি সারা পরে অফিসের কাজ শেষ করে কোন পার্টি বা কথাও ঘুরতে গেলেন। বা আপনি বন্ধুদের সাথেই ঘুরতেই গেলেন।

তখন যদি আরামের জন্য জুতা খুলেন ,আর খুলেই যদি আই বিশ্রী অবস্থায় পরেন? তাহলে আর কি আপনার পাশের বেক্তি তো নাক শিটকাবেই সাথে সাথে নিজের মেজাজ গরম হবে।

আর তাই আই অবস্থা যাতে আর না হয় তাই ফুট স্প্রে বা সু স্প্রে ব্যাবহার করতে হবে।আর যদি জুতা পায়ে দেয়ার সময় দেখলেন যে ফুট স্প্রে বা সু স্প্রে শেষ? চিন্তার কোন কারন নেই?

আপনি ঘরেই সহজে বানাতে পারবেন ফুট স্প্রে বা সু স্প্রে। অনেকক্ষণ জুতা পরে থাকলে অনেকেরই পা ঘেমে যায়। ফলে যখন জুতা খোলা হয় তখন পা থেকে আসা ঘামের দুর্গন্ধ অন্যদের বিরক্তির কারণ হয়।

তাই এবার আসুন আমরা ফুট বা সু স্প্রে বানানো শিখবো।

ফুট স্প্রে বা সু স্প্রেঃ

উপাদান যা লাগবে

পেপারমিনট অয়েল,
বেবি পাউডার,
পানি,
একটি স্প্রে বোতল।

কিভাবে বানাবেন

একটি পরিষ্কার পাত্রে ১/২ চা চামচ বেবি পাউডার নিন। এবার এর সাথে ২ ফোঁটা পেপারমিনট অয়েল আর পানি মিশিয়ে নিন।

পানির পরিমাণ আপনার স্প্রে বোতল ভরতে যততুকু লাগবে ঠিক ততটুকুই দিবেন। সব উপকরণ একসাথে মিশানো হয়ে গেলে মিশ্রণটি ফানেলের সাহায্যে স্প্রে বোতলে ভরে নিন।

তারপর খুব ভালো ভাবে বোতলটিকে ঝাঁকিয়ে নিন। তৈরি করে হয়ে গেল আপনার ফুট স্প্রে বা সু স্প্রে। আপনার খরচও বেচে গেল অন্যান্য জিনিশের মত। সহজ হয়ে উঠুন সহজ জিনিসে।

পরিশেষে

এবার যখন ইচ্ছা তখন পায়ে অথবা জুতায় স্প্রে করে আপনার পাকে করে তুলুন সুরভিত।আপনি চাইলে এই স্প্রে সু অর্থাৎ জুতায় সরাসরি ব্যাবহার করতে পারেন। যদি আপনার পায়ে না দিতে চান।

যাদের পা স্পর্শকাতর বা কিছু একটু হলেই চামড়ায় সমস্যা দেখা দায় তারা জুতায় দিতে পারেন। তাহলে সরাসরি আপনার পায়ের চামড়ার ক্ষতি হবে না আর আপনিও সহজ বোধ করবেন ।