বাইরে গরম পরতে শুরু করেসে তাই ,সব শান্তি এখন ঘরের চার দেয়ালের মধ্যেই আবদ্ধ । এ কারণে ঘরের সবকিছুতেই এবং বিশেষ করে ছোট ঘরকে বড় দেখানো, ঘরে পরিপাটি ভাব আনতে ও ঘর ঠাণ্ডা রাখতেও রং সাহায্য করে। যেমনঃ

ঘর ঠাণ্ডা রাখতেঃ

> বিশেষ ওয়েদার কোট পেইন্ট দেয়ালের তাপমাত্রা কমাতে সাহায্য করে।

> রং নির্বাচনের সময় হালকা আর কোমল ধরনের রং রাখুন।

> সাদা, অফহোয়াইট, পিঙ্ক, স্যান্ডল, পেস্ট, হালকা নীলের মতো উজ্জ্বল রং ঘরকে বড় আর স্নিগ্ধ আমেজ দেয় ।

> তেমনই গরমের হাত থেকে ঘরকে প্রশান্তিও দেয় ।

> বাড়ির বাইরের দেয়াল সান প্রটেক্টর রং ব্যবহার করবেন।

> ছাদ সহজে গরম হবে না। ফলে ঘরও খানিকটা ঠাণ্ডা থাকবে।

> রান্নাঘরে চুলা জ্বালানোর কারণে সবচেয়ে বেশি গরম হয়।

> তাই রান্না ঘরে সাদা বা অফহোয়াইট রঙের বিকল্প নেই। এতে করে ঘর বেশি আলোকিত হয়। সাদা ও অফহোয়াইট রং তাপ শোষণ করে ঘরকে ঠাণ্ডা রাখে।

ঘর ছোট হলে বড়ো দেখাতেঃ

> ঘরে যদি পর্যাপ্ত প্রাকৃতিক আলো আসে তবে গাঢ় রং ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু ঘরে যদি সূর্যের আলো না থাকে তবে কোন ভাবেই গাঢ় রং ব্যবহার করা যাবে না। এতে ঘরকে আরো ছোট মনে হবে।

> আসবাবপত্রের সাথে মিল রেখে দেয়ালে রং করান। আসবাবপত্রের রং যদি হালকা হয় তাহলে দেয়ালেও এমন রং করান। এতে করে আসবাবের আয়তন ছোট দেখায় এবং ঘরেও একটা খোলামেলা পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

ঘর উজ্জ্বল করতেঃ

> দরজা ও জানালায় দেয়ালের চেয়ে একটু গাঢ় রং করতে পারেন। দেয়ালে গাঢ় রং করতে চাইলে তাহলে একটা দেয়ালে করান এবং স্যাটিন কোট রাখুন। এতে করে আলো প্রতিফলিত হবে এবং ঘর বড় ও উজ্জ্বল দেখাবে।

> ঘরে যদি একটু গাঢ় রং করতে চান অথবা ঘরে উষ্ণ পরিবেশ সৃষ্টি করতে চান তাহলে আপনি কমলা, সানসেট অরেঞ্জ , ম্যাট লাল রং একটা দেয়ালে করে অন্য দেয়ালে সামঞ্জস্যপূর্ণ রং করতে পারেন।

> যেসব ঘরে সবসময় আলো ঢোকে সেসব ঘরে একটু গাঢ় রং করতে পারবেন অনায়াসেই। সি গ্রিন, টারকয়াজ, গাঢ় নীল, গাঢ় গোলাপি রং ব্যবহার করতে পারবেন।

ঘরে মনমরা ভাব দূর করতেঃ

> কনট্রাস্ট রঙ ঘরে স্যাঁতস্যাঁতে ও মনমরা ভাব দূর করে। তাই আপনি চাইলেই দুটি পরস্পর বিপরীতধর্মী রঙে রাঙাতে পারেন ঘরের দেয়াল। একটা দেয়ালে লালচে কোনো রং ব্যবহার করে বাকি তিনটি দেয়ালে অফ হোয়াইট করতে পারেন।

> ঘর যদি দক্ষিণমুখী হয় হালকা সবুজ, হালকা নীল, হালকা হলুদ বা অফ হোয়াইট রং করতে পারেন।

রান্না ঘরে আলো বারাতেঃ

> রান্নাঘরে সাধারণত প্রচুর আলোর দরকার হয়। আলো প্রতিফলিত হয় এমন রং নির্বাচন করুন। যেমনঃ সাদা বা অফ হোয়াইট।

বাথরুম এর স্যাঁতস্যাঁতে ভাব দূর করতেঃ

> বাথরুমে ব্যবহার করতে পারেন হালকা রং, যাতে পরিবেশ স্যাঁতস্যাঁতে অনুভব না হয়।

খাবারে আগ্রহ বারাতেঃ

খাবার ঘরে উষ্ণ এবং হালকা রং ব্যবহার করুন। এতে খাদ্য গ্রহণে বা খেতে আগ্রহ বাড়ে।

শিশুর ঘরের আলোঃ

> শিশুদের ঘরের জন্য ব্যবহার করুন উষ্ণ ও উজ্জ্বল রং। যেমনঃ হলুদ, কমলা, গোলাপি, নীল ইত্যাদি।

বারান্দা আকর্ষণীয় করতেঃ

> বারান্দা ও করিডোরে ব্যবহার করতে পারেন হালকা ও কোমল ধরনের রং।

বসার ঘরে আনন্দময় পরিবেশ চাইলেঃ

> বসার ঘরে আনন্দময় পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাইলে উজ্জ্বল ও উষ্ণ রং ব্যবহার করতে পারেন।

শোবার ঘরে প্রশান্তিময় পরিবেশঃ

> শোবার ঘরে ব্যবহার করুন শীতল রং । যেমনঃ নীল বা সবুজাভ রং। এতে করে ঘরে প্রশান্তিময় পরিবেশ সৃষ্টি হয় ।