ঘরে বাহারি রঙ এর নেইলপলিশ থাকলেও হাতে দেয়ার সময় বা যখন যে রঙ এর লাগবে তা পাওয়া যায় না। আবার হুট করে একটা ড্রেস কিনে আনলেন কিন্তু তার সাথে মিলিয়ে নেইলপলিশ নেই। তাই কিভাবে এই সমস্যা সমাধান করবেন আজকে রইল তারই কিছু টিপস।

নেইলপলিশ

যা যা লাগবে

নিজের পছন্দের রঙের আইশ্যাডো,
ফানেল,
প্লাস্টিক ব্যাগ,
ক্লিয়ার নেইলপলিশ,
রুটি বেলার বেলুন।

কিভাবে বানাবেন

প্রথম ধাপ

নিজের পছন্দ মত কোন পুরানো অথবা নতুন আইশ্যাডো নিন।
শ্যাডো যদি পাউডার হয় তাহলে তা গুঁড়া না করলেও চলবে। সলিড ব্লক হলে একটি প্লাস্টিক ব্যাগে ভরে রুটি বানানোর বেলুন দিয়ে গুঁড়ো করুন।

দ্বিতীয় ধাপ

যতক্ষণ পর্যন্ত ফাইন পাউডার না হয় ততক্ষণ গুঁড়া করতেই থাকুন। কোন রকম ছোট টুকরা বা গুঁড়া গুঁড়া যেন না থাকে। ফাইনাল প্রোডাক্ট দেখতে অনেক খারাপ দেখাবে যদি ভাল করে গুঁড়া না হয়।

তৃতীয় ধাপ

শ্যাডোভাল করে গুঁড়া করা হলে একটি পরিষ্কার ফানেলের সাহায্যে শ্যাডো গুঁড়া ক্লিয়ার নেইলপলিশের মধ্যে ভরে নিন।

ফাইনাল ধাপ

যদি ষ্টীল বল বিয়ারিং পান তাহলে তা নেইলপলিশে দিয়ে দিন। এতে করে আপনার নেইল পলিশ তাড়াতাড়ি এবং খুব সহজে মিক্স হবে। বোতলটা ভালো ভাবে নাড়ুন যতক্ষণ পর্যন্ত না রঙ সমভাবে মিশে যায়।

নাড়তে নাড়তে না হলে প্রয়োজনে ঝাকাতে থাকুন। খেয়াল রাখতে হবে যে দুইটা উপাদানই একসাথে ভাল ভাবে মিশছে।

টুকিটাকি কথা

০১. যদি আইশ্যাডো দিয়ে নেইলপলিশ বানাতেই চান কিন্তু আইশ্যাডো হিসেবে বেবহার করবেন না। তাহলে সস্তা দেখে আইশ্যাডো কিনলেই হবে । অযথা দামি দামি আইশ্যাডো না কিনলেও হবে।

আর এতে করে অনেকগুলো নেইলপলিশও বানাতে পারবেন। সহজেই আপনার নেইলপলিশ এর রকম বা ভিন্ন ভিন্ন রঙের নেইলপলিশ হয়ে যাবে।

০২. আর আপনি যদি চান এই সহজ কাজটাকে আরও একটু সহজ করতে। তাহলে আপনি গুঁড়া বা সলিড ব্লক না ব্যাবহার করলেও চলবে। লিকুইড আইশ্যাডো ব্যবহার করলেই পারেন।এতে সময় কম ও সহজ হবে।

০৩. আর যদি ক্লিয়ার নেইলপলিশ না থাকে তাহলে ২টি নেইলপলিশ মিশিয়েও নতুন নেইলপলিশ বানাতে পারেন। যেমন সবুজ নেইলপলিশ বানাতে হলে হলুদ আর নীল নেইলপলিশ এক সাথে মিশাতে হবে।

বেগুনি রঙ চাইলে লাল ও নিল মিশিয়ে বানাতে পারেন।

খয়েরি রঙ চাইলে লাল আর কালো রঙ মিশাতে পারেন।

আবার গোলাপি রঙ এর নেইলপলিশ চাইলে লাল ও সাদা রঙ মিলিয়ে বানাতে পারেন।

তেমনি ধূসর রঙ চাইলে সাদা ও কালো মিশাতে পারেন।