উদ্যোক্তা কি?

নিজ থেকে কিছু করাকেই উদ্যোগ বলে। কোন একটি কাজ বাস্তবায়ন করার জন্য যিনি পরিকল্পনা প্রনয়ন করেন, তাকেই উদ্যোক্তা বলে। হোক সেটা কোন প্রতিষ্ঠান এর জন্য বা নিজের জন্য।

যদি কোন একটি কাজ পরিচালনা করার জন্য আপনি পরিকল্পনা করেন, তাহলে আপনিও একজন উদ্যোক্তা

সফল উদ্যোক্তা হওয়ার মূলমন্ত্রঃ

১।ব্যবসার আইডিয়া পাওয়ার পরেই সেটা সতকর্তার সাথে পরীক্ষা করা এবং আইডিয়াটি যদি বাস্তবমুখী হয়,অবিলম্বে ব্যবসা শুরু করা।

২/ ব্যবসায় ব্যর্থ হলে এবং সেই ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা গ্র্রহণ করতে হবে।

৩। একজন পথপ্রদর্শক খুঁজে বের করতে হবে এবং তার কাছ থেকে দিক নির্দেশনা গ্রহণ করতে হবে।

৪। পুনরায় ব্যর্থ হবে এবং সেই ব্যর্থতা থেকে পুনরায় শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে।

৫। পথপ্রদর্শকের কাছে এসে বেশি বেশি পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে।

৬। প্রতিনিয়ত ব্যর্থ হওয়া এবং সেই ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা গ্রহণ করতে হবে।

৭। সফল হবার আগ পর্যন্ত উপরের ধাপগুলোর পুনরাবৃত্তি করা।

৮। সফলতার পরে অনুষ্ঠান আয়োজন করা এবং সেই অনুষ্ঠান উপভোগ করতে হবে।

৯। ব্যবসা থেকে যেমন উপার্জিত অর্থ হিসেব করতে হবে তেমনি সাফল্য এবং ব্যর্থতার পরিমাণও হিসেব করতে হবে।

১০। এইভাবে পুরো প্রক্রিয়াটি পুনরাবৃত্তি করতে হবে।

সফল উদ্যোক্তা হতে যা যা করবেন অবশ্যই করবেনঃ

১/ বাজার বিশ্লেষণ

২/ ব্যবসা যাই হোক হাতে ক্যাশ রাখুন

৩/ নতুন নতুন প্রোডাক্ট এবং মার্কেটের সাথে তাল মিলিয়ে চলার চেষ্টা করুন

৪/ শুরুতেই বড় মার্কেটে পা দিবেন না

৫/ ভোক্তাদের (Consumer/ Customer) মতামতের প্রাধান্য দিন

৬/ প্রয়োজনে পরিবর্তন করুন পরিকল্পনা

৭/ সততা, ন্যায়পরায়ণতা এবং অখন্ডতা

৮/ অধ্যবসায় সংযম এবং সততা

৯/ প্রতিদিন তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করতে হবে।

১০/ সবার সঙ্গে মিশে কাজ করার মানসিকতা রাখবেন।

 

চাকরি নামের সোনার হরিণের পেছনে ছুটতে ছুটতে জীবনের দামি মূল্যবান সময়টুকু হারিয়ে না ফেলে যারা উদ্যোক্তা হয়ে অন্যদের চাকরি দিতে চান ।

সেসব মানুষের অজুহাতের শক্তি তাদের স্বপ্নের শক্তির চেয়ে অনেক গুন বেশি ।

সেসব মানুষ কখনই উদ্যোক্তা হতে পারে না , কেননা সাফল্য এবং অজুহাত কখনই একসাথে অবস্থান করে না ।

তাই অজুহাত না দেখিয়ে নিজে উদ্যোগী হন ।