দাঁতের ব্যাথা উপশমের কিছু কার্যকারী উপায়

দাঁতের যথাযথ যত্ন ও সুরক্ষার অভাবে দাঁতের সমস্যা দেখা দেয়। এ সমস্যার মধ্যে একটি হচ্ছে দাঁতের ব্যাথা। এছাড়াও দাঁত ও মাড়ির বিভিন্ন ধরণের সমস্যার কারণেও দাঁতে ব্যাথা হতে পারে। দাঁতের সমস্যা প্রধান সমস্যা গুলো হচ্ছে ক্যাভিটি, মাড়ির সমস্যা, দাঁতের ইনফেকশন, দাঁত দিয়ে রক্ত পরা, দাঁতের গোঁড়া আলগা হয়ে যাওয়া ইত্যাদি। দাঁতের ব্যাথা হলে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। কারন ঘরোয়া কিছু উপায়ে সহজেই দাঁতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। তাহলে চলুন জেনে নেই উপায় সমূহ।

১। পেঁয়াজ

পেঁয়াজে আছে অ্যান্টিসেপ্টিক উপাদান। এই অ্যান্টিসেপ্টিক উপাদান দাঁতের জীবাণু নষ্ট করে দাঁতের ব্যাথা উপশমে সাহায্য করে। প্রথমে দাঁতের ব্যাথা জায়গাটি খুজে বের করুন। এখন একটি পেঁয়াজ দাঁতের আক্রান্ত জায়গার কাছাকাছি নিয়ে চিবাতে থাকুন। আর যদি চিবোতে অসুবিধা হয় তাহলে এক টুকরা পেঁয়াজ কেটে নিন। এবং এই টুকরা টি আক্রান্ত জায়গাতে রাখুন। কিছুক্ষণের মধ্যে দাঁত ব্যাথা থেকে মুক্তি পাবেন।

২। পেয়ারা পাতা

দাঁতের ব্যাথা উপশমে পেয়ারা পাতা একটি উপকারি উপাদান। ২ থেকে ৩ টি কচি পেয়ারা পাতা ভালোভাবে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এখন পাতা গুলি মুখে নিয়ে চিবোতে থাকুন। অথবা কয়েকটা পেয়ারা পাতা নিয়ে পানিতে সিদ্ধ করুন। এরপর পানি ঠাণ্ডা করে ওই পানি দিয়ে কুল্কুচি করুন। দাঁতের ব্যাথা থেকে মুক্তি পাবেন।

৩। রসুন

রসুনে আছে এন্টিবায়োটিক উপাদান। রসুনের এন্টিবায়োটিক ও অন্যান্য স্বাস্থ্যকরি উপাদান দাঁতের ব্যাথা উপশমে দারুন কাজ করে। একটি রসুন ভেঙ্গে একটু লবন মিশিয়ে আক্রান্ত দাঁতের গোঁড়ায় লাগান। অল্প সময়ে দাঁতের ব্যাথা দূর হবে।

৪। উষ্ণ লবন পানি

এক গ্লাস উষ্ণ গরম পানিতে লবন মিশিয়ে কুল্কুচি করুন। এতে দাঁতের শিরশির ভাব দূর হবে আর ব্যাথাও কমে যাবে। গরম পানি আর লবনের কার্যকারিতা দাঁতের টিস্যুগুলো সচল হয়ে উঠে। এবং সব জীবাণু তাদের কার্যক্ষমতা হারিয়ে ফেলে।

৫। লবন ও মরিচ

দাঁতে যখন খুব বেশি ব্যাথা হয় তখন লবন আর মরিচ খুব কার্যকরী। সমপরিমাণ লবন আর মরিচ নিয়ে তাতে কয়েক ফোটা পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এখন এই পেস্ট আক্রান্ত দাঁতে সরাসরি লাগিয়ে নিন। এভাবে কয়েকদিন লাগান দাঁতের ব্যাথা ভালো হয়ে যাবে।

৬। গোলমরিচ ও লবন

লবন ও গোলমরিচ উপাদানগুলোর ব্যাকটেরিয়া নাশক, প্রদাহ নাশক ও ব্যথা নাশক গুণ আছে। দাঁত যখন খুব বেশি সংবেদশীল হয়ে উঠে তথন লবন ও গোলমরিচের মিশ্রণ ব্যাবহার করলে ভালো ফল পাওয়া যায়। সমপরিমাণ গোলমরিচ গুড়া ও লবন সামান্য পানি দিয়ে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এই পেস্ট আক্রান্ত দাঁতে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এভাবে কয়েকদিন এই পেস্ট ব্যাবহার করুন।

৭। আদা

এক টুকরো আদা কেটে নিন এবং যে দাঁতে ব্যথা করছে সে দাঁত দিয়ে চিবাতে থাকুন। যদি চিবাতে বেশি ব্যথা লাগে তাহলে আদা হাল্কা সেঁচে আক্রান্ত দাঁতে লাগান । এবং জিহ্বা দিয়ে একটু চেপে রাখুন দাঁতের কাছে। কিছুক্ষণের মধ্যে ব্যাথা চলে যাবে।

৮। বেকিং সোডা

একটা কটন বাড একটু পানিতে ভিজিয়ে নিন। এর মাথায় অনেকটা বেকিং সোডা লাগিয়ে নিয়ে আক্রান্ত দাঁতে লাগান। অন্য ভাবেও বেকিং সোডা ব্যবহার করা যায়। এক চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস গরম পানিতে গুলিয়ে সেটা দিয়ে কুলকুচি করে ফেলুন।

৯। লবঙ্গ

যে দাঁতটা ব্যাথা করছে তার ওপরে বা পাশে একটি লবঙ্গ রেখে দিন। মাড়ি আর দাঁতের মাঝে বা দুই চোয়ালের মাঝে এই লবঙ্গ চেপে রাখুন যতক্ষণ না ব্যথা চলে যায়। লবঙ্গের তেল ব্যবহার করতে পারেন তবে দুই-এক ফোঁটার বেশি নয়। লবঙ্গ গুঁড়োর সাথে পানি বা অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করেও লাগাতে পারেন।

মনে রাখবেনঃ

আপনার দাঁত ব্যাথা করছে তার মানে নিশ্চয়ই দাঁতের ভেতরে কোনো সমস্যা আছে । অবশ্যই ডেন্টিস্টের সাহায্য নিবেন। ঘরোয়া এই প্রতিকারগুলো আপনাকে কিছুটা সময়ের জন্য ব্যাথা থেকে মুক্তি দিচ্ছে বলেই ডাক্তার দেখানোর কথাটা ভুলে যাবেন না। বিশেষ করে যদি মাড়ি ফুলে যায় তবে বুঝতে হবে ইনফেকশন হয়ে গেছে এবং অতি সত্তর ডেন্টিস্টের সাথে দেখা করুন।