বিরিয়ানি মানেই মিষ্টি স্বাদের।বিরিয়ানি মানেই বিশেষ কিছু দিনের বা মুহূর্তের বিশেষ কিছু।বিরিয়ানি পছন্দ করে না বা খায় না, এমন মানুষ পাওয়াই দুস্কর।যারা একটু মিষ্টি কম খান বা ঝাল পছন্দ করেন,তাদের জন্য এবার নতুন কিছু হল ঝাল চিকেন বিরিয়ানি।

বিরিয়ানি ঝালও হতে পারে? হ্যাঁ বিরিয়ানি ঝালও হতে পারে। বিরিয়ানি রান্নার উপায় হয়তো আমরা জানি কিন্তু ঝাল বিরিয়ানি? চলুন জেনে নেয়া যাক,কিভাবে ঝাল চিকেন বিরিয়ানি রান্না করতে হয়ঃ

ঝাল চিকেন বিরিয়ানি

উপকরণ :

মুরগি দেড় কেজি।
বাসমতি বা পোলাওয়ের চাল ১ কেজি।
পেঁয়াজ ১ কাপ।
আদাবাটা ২ টেবিল-চামচ।
রসুনবাটা ২ টেবিল-চামচ।
বিরিয়ানির মসলা ৩ টেবিল-চামচ।
টক দই ৪ টেবিল-চামচ।
মরিচগুঁড়া দেড় টেবিল-চামচ।
পুদিনাপাতা বাটা আধা টেবিল-চামচ।
ধনেপাতা বাটা ১ টেবিল-চামচ।
কাঁচামরিচ বাটা ১ টেবিল-চামচ।
সরিষার তেল ১/৪ কাপ।
সয়াবিন তেল ১/৪ কাপ (মুরগি রান্না জন্য)।
ঘি ২ টেবিল-চামচ।
লবণ স্বাদ মতো।
পানি ১৫ কাপ (গরম পানি)।
এলাচ ৩টি। দারুচিনি ১টি৷

প্রণালি :

রান্নার আগেই চাল ধুয়ে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। বাসমতি-চাল হলে ৪০ মিনিট আর পোলাওয়ের চাল হলে ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখতে হবে। তেল গরম করে পেঁয়াজকুচি হালকা বাদামি করে ভেজে এর মধ্যে আদা ও রসুন বাটা এবং লবণ দিয়ে কষিয়ে নিতে হবে। টক দই, টমেটো, বিরিয়ানির মসলা, শুকনা মরিচগুঁড়া ও সামান্য পানি দিয়ে কষিয়ে মুরগির মাংসের টুকরাগুলো দিয়ে দিতে হবে।

এবার মাংস ভালোভাবে কষিয়ে সিদ্ধ হওয়ার জন্য পানি দিন। মাংস ভুনা ভুনা করে নিতে হবে। মাংস রান্না হলে ধনিয়া ও পুদিনা পাতা এবং কাঁচামরিচ-বাটা দিয়ে চুলা বন্ধ করে দিন। চাল যে পরিমাণ তার দ্বিগুন থেকে একটু কম পানি নিতে হবে। কারণ মাংসের মধ্যে ঝোল আছে।

এবারে বিরিয়ানি রান্নার জন্য হাঁড়িতে সরিষার তেল, এলাচ ও দারুচিনি দিয়ে ভিজিয়ে রাখা চাল পানি ঝরিয়ে দিয়ে দিতে হবে। চাল ৭,৮ মিনিট নেড়ে নেড়ে ভালভাবে কষাতে হবে।সুন্দর ভাজা ভাজা হয়ে এলে, গরম করে রাখা পানি ও লবণ দিয়ে দিতে হবে।

পানি ফুটলে ১০ মিনিট পর চাল যখন প্রায় ৮০ ভাগ সিদ্ধ হয়ে যাবে তখন রান্না করা মাংস ও কাঁচামরিচ দিয়ে চালের সঙ্গে মিশিয়ে দিতে হবে। সাবধানে মেশাতে হবে। নইলে চালগুলো ভেঙে যাবে বা ভেঙ্গে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। ২৫ মিনিট ঢেকে রান্না করুন৷ নামানোর আগে উপর দিয়ে ঘি ছড়িয়ে দিন। গরম গরম পরিবেশন করুন৷