ঘড়ি জীবন চলার পথের অন্যতম অনুষঙ্গ। সময়ের বিবর্তনে এর ফলে জায়গা দখল করেছে মুঠোফোন। তাই ঘড়ির অবস্থান এখন প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ফ্যাশনে।প্রয়োজনের সঙ্গে ফ্যাশনের কথা মাথায় রেখে তরুণ-তরুণী অর্থাৎ তরুন প্রজন্মের সবার কাছেই হাতঘড়ির ব্যবহারে পরিবর্তন এসেছে।

বাজার ঘুরলে দেখা যায় ঘড়িগুলোতে ডায়াল ও চেনে এসেছে ভিন্নতা। তবে তরুণদের কাছে সব সময় ব্র্যান্ডের ঘড়িগুলোই সবসময় চাহিদার শীর্ষে থাকে। কারণ এগুলো যেমন দেখতে ফ্যাশনেবল, তেমনি টেকেও অনেক দিন।

কার জন্য কেমন ঘড়ি

আপনি প্রথমেই ঠিক করুন কোন ধরনের ঘড়ি ব্যবহার করতে চান। বাজারে আছে ব্যাটারিচালিত কোয়ার্টজ মুভমেন্ট ঘড়ি ও মেকানিজম মুভমেন্ট ঘড়ি। এর বাইরেও ডিজিটাল ঘড়ি আছে, এতে আছে প্রযুক্তির সব সুবিধা। আবার কোয়ার্টজ মুভমেন্টে ঘড়ি প্রতি সেকেন্ডে কয়েক হাজারবার ভাইব্রেশন দিয়ে থাকে। এই ঘড়ির ব্যাটারি এক বা দুই বছর পর পরিবর্তন করতে হয়। কোয়ার্টজ ঘড়ি বিভিন্ন রকমের রয়েছে। যেমনঃ অ্যানালগ, ডিজিটাল, অ্যানাডিজি।

ম্যাকানিজম ঘড়ি আবার ঐতিহ্যগত শৈল্পিক নিপুণতা প্রদর্শন করে। মেকানিজম ঘড়ি আপনি অটোমেটিক ও ম্যানুয়াল—এই দুই ধরনেরই পাবেন।

ডিজিটাল ঘড়ির মাধমে আপনি ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে সময়, ক্যালেন্ডার, অ্যালার্ম, স্টপ ওয়াচসহ আরও অনেক প্রযুক্তির সুবিধা পাবেন।

ডিজিটাল ঘড়িতে অ্যানালগ ঘড়ির চেয়ে বেশি ফিচার থাকে। ডিজিটাল ঘড়িতে ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে সব তথ্য দেখতে পাবেন।আপনি চাইলে ডিজিটাল ঘড়ি স্মার্টফোনের সঙ্গে সংযুক্ত করতে পারবেন। ঘড়ি ডিজাইন, স্টাইল ও স্থায়িত্ব অনুসারে ভিন্ন ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। খেলাধুলা বা অন্যান্য শারীরিক কার্যক্রমের সঙ্গে মিল রেখে বা অনেক সময় পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে ঘড়ি পছন্দ করতে পারেন।

রুচি বুঝে ঘড়ি কিনুন

স্মার্ট ফ্যাশনের জন্য চাই স্টাইলিশ হাতঘড়ি। ঘড়ির সময় ঠিক থাক বা না থাক স্টাইলিশ ফ্যাশনের জন্য হাতে ঘড়ি থাকা চাই-ই চাই। আগে থেকেই অবশ্য সময় দেখার জন্যই ঘড়ির ব্যবহার ছিল।

কিন্তু মুঠোফোনের আবির্ভাবে তার প্রয়োজনীয়তা দিন দিন কমতে থাকে। কিছুদিন এভাবে চললেও মানুষ এখন ফ্যাশন অনুষঙ্গ হিসেবে আবারও হাতঘড়িকে নিয়ে এসেছে এক নম্বরে।

এদিকে আবার ব্যক্তিত্ববান মানুষের প্রয়োজন আর ফ্যাশনের মিশেল ঘটেছে হাতঘড়ির চেহারা আর ব্র্যান্ডে।

কার জন্য কেমন ঘড়ি

শিশু কিশোরেরা শুরু থেকেই স্পোর্টস ঘরানার ঘড়ি বেশি পছন্দ করে। অনেকে আবার পছন্দের তারকার অনুকরণে ঘড়ি কিনতে। এতে করে নিজেদের ভিতর একটা অন্য রকম ভাব আনতে চায়।

বর্তমানে তরুণদের জন্য পছন্দের তালিকার টপ লিস্ট এ রয়েছে মোটা চেইন আর বড় বড় ডায়ালের ঘড়ি। হাতের সঙ্গে মানানসই করেই যে আপনাকে সব সময় পরতে হবে,ব্যাপারটা ঠিক তা না।আপনি চাইলেই চিকন হাতেও খুব ভারী ঘড়ি বা বেল্টের ঘড়ি ব্যাবহার করতে পারেন।

অফিশিয়াল পোশাকে সাজের অপূর্ণতা থেকে পূর্ণতা আনতে পছন্দের একটি ঘড়ি থাকা হতে পারে আপনার জন্য অল্পতেই বেশি কিছু। তবে এ ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই নিজের চেহারা, সাজ, দৈহিক গঠনকে প্রাধান্য দিতে হবে।
অনেকের ভিতর আবার বাছাই করা ব্র্যান্ড নিয়েও চলে সবার ভেতর কমবেশি নীরব প্রতিযোগিতা।