You are here:Home-সৌন্দর্য টিপস-চুলের যত্ন

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন

লম্বা, টানটান ঝলমলে চুল কে না চায়। হাল ফ্যাশনে সোজা চুলের কদর তাই খুবই বেশি।বিউটি পার্লারগুলোতে চুলের রিবন্ডিং এর জন্য ভিড় চোখে পরার মতো। তবে রিবন্ডিং চুল দেখতে যেমন আকর্ষনীয় তেমনি এর রক্ষণাবেক্ষনও সমান গুরুত্বপূর্ণ।রিবন্ড করা চুল যত্নের অভাবে ভেঙে যায়, রুক্ষ হয় ও পড়ে যায়। এ জন্য প্রয়োজন অতিরিক্ত যত্নের।  যত্ন করার টিপসঃ ১।শ্যাম্পু করার আগে রাতে নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল চুলে ও স্কাল্পে ম্যাসাজ করে নিন। মোটা দাড়ের চিরুনি দিয়ে কিছুক্ষণ চুল আঁচড়ে নিন। গোসলের আগে গরম পানিতে তোয়ালে চুবিয়ে আধা ঘণ্টা চুল পেঁচিয়ে রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করুন। এতে রক্ত সাঞ্চালন বাড়বে ও রুক্ষভাব কমবে। ২।শ্যাম্পু করা সপ্তাহে কমপক্ষে তিনবার শ্যাম্পু করুন। কারণ রিবন্ডিং চুল খোলা রাখায় দ্রুত ময়লা হয়। বেশি শ্যাম্পু

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন2019-05-24T11:28:08+06:00

সুন্দর ও ঝলমলে চুল পাওয়ার কার্যকরী সহজ উপায়

সুন্দর ত্বক পেতে ত্বকের যত্ন নিতে হয় তেমনি সুস্থ, সুন্দর ও ঝলমলে চুলও পেতে হলে চুল এর পরিচর্যা করা দরকার। সুন্দর ড্রেস আর জুতার সঙ্গে নিজেকে সাজাতে ঝলমলে ও সুন্দর চুলের জুড়ি নেই বললেই হয়।চুল বাধা সুন্দর হলে আপনাকে দেখতে সুন্দর লাগবে অতুলনীয়। সুন্দর চুলের আকাঙ্ক্ষা নেই, এমন মানুষ পাওয়া দুস্কর। তবে বিভিন্ন কারণে চুল মলিন হয়ে পড়তে পারে। চুল নারী সৌন্দর্যের একটি অন্যতম নিদর্শন। সঠিক পরিচর্যা না করলে চুল ধীরে ধীরে তার সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলে হয়ে যায় মলিন ও রুক্ষ । তাই সব ঋতুতে চুলের যত্ন নিতে কিছু অত্যাবশ্যকীয় বিষয় মনে রাখা খুবই জরুরী। স্বাস্থ্যজ্জ্বল, সুন্দর ও আকর্ষণীও চুল পেতে চাইলে যা করতে হবে, তা হলো- চুল পরিষ্কার: ১।কমপক্ষে তিন দিন পর পর চুল

সুন্দর ও ঝলমলে চুল পাওয়ার কার্যকরী সহজ উপায়2019-04-24T11:06:11+06:00

কপালের আশেপাশে চুল কমে যাওয়া রোধ করার ঘরোয়া উপায়

অনেক মানুষ আছেন যাদের কপাল অনেক বড় থাকে এবং তাঁরা তাঁদের এই বড় কপাল ঢাকার জন্য বিভিন্ন রকম হেয়ার কাট দিয়ে থাকেন। কপালে চুল কম থাকলে কপাল বড় ও চ্যাপ্টা দেখায়। যা মুখের স্বাভাবিক গড়ন বা সুন্দর এর বাঁধা হয়ে দারায়।যদি ঘরোয়া উপায়ে প্রাকৃতিক ভাবেই আবার সেই চুল গজানো যায় বা চুল ফিরে পাওয়া যায় তাহলে অনেক টাকা খরচ করে হেয়ার ট্রিটমেন্ট কেন করবেন বলেন তো? আসুন জেনে নেই কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে কপালের চুল গজানো যায়। সাধারণত হরমোনের পরিবর্তন, জেনেটিক কারণ বা পুষ্টির অভাবে চুল পড়ার সমস্যা হয় । চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে অ্যালোপেসিয়া । কপালের সামনের দিক থেকে চুল ওঠা শুরু করে আস্তে আস্তে পেছনের দিকে যেতে শুরু করে এবং একসময় মাথায় টাক

কপালের আশেপাশে চুল কমে যাওয়া রোধ করার ঘরোয়া উপায়2019-04-21T17:51:09+06:00

প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু সহজ কৌশল

চুল একজন নারীর সুন্দর প্রকাশের অন্যতম জিনিষ। অনেকের কোঁকড়া চুল নিয়ে অনেক সময় নানা ঝামেলায় পরতে হয় । অনেক সময় নিজেও অস্বস্তি বোধ করে। বা অনেকে একটু বারতি সুন্দর হওয়ার জন্য বা নিজেকে আকর্ষণীয় করার জন্য চুল সোজা করতে চান। তখনি অনেকে পরেন নানা ঝামেলায়। তাই সেই সব ঝামেলা এড়িয়ে সহজ কিছু কৌশল দেয়া হল কোঁকড়া চুল সোজা করার। প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু কৌশলঃ ১. নারকেল এবং লেবুঃ একটি ভাল দেখে তাজা নারকেলের দুধের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ভালো ভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণটিকে কয়েক ঘণ্টা ধরে ফ্রিজে রেখে সংরক্ষন করতে হবে। ফ্রিজ থেকে বের করলে একটি ঘন ক্রিমি লেয়ার দেখা যাবে পাত্রের উপরে। এই লেয়ারটা দিয়ে চুল সোজা করার কাজে

প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু সহজ কৌশল2019-04-19T19:24:22+06:00

চুলের আগা ফাটা রোধ করার ঘরোয়া উপায় সমূহ

চুলের আগা ফাটা রোধ করুন ৫টি চুলের আগা ফাটা চুলের পুষ্টিহীনতার লক্ষণ। ফাটা চুল চুলের উজ্জ্বলতা নষ্ট করে দেয় এবং চুলের বৃদ্ধি কমে যায়। চুলের প্রতি স্পর্শকাতর নারী একটি জিনিসকে সবসময় ভয় পায়,আর সেটা হচ্ছে চুলের আগা ফাটা। জেনে নিন চুলের আগা ফাটা রোধ করার ঘরোয়া ৫ টি সহজ উপায়। ১। চুল ছাঁটা/কাটা চুল ছোট হয়ে যাওয়ার ভয়ে অনেকে চুল কাটতে চান না। কিন্তু আপনি জানেন কি, নিয়মিত চুল কাটলে চুল দ্রুত বৃদ্ধি পায়? এছাড়া চুলের আগা ফাটা রোধ করতে চুল ছাঁটা/কাটার বিকল্প নেই। ২। হট টাওয়েল ট্রিটমেন্ট হট টাওয়েল ট্রিটমেন্ট পদ্ধতি চুলের আগা ফাটা রোধ করে এবং চুলের কোমলতা ধরে রাখতে এর জুড়ি নেই। প্রথমে মাথার স্কাল্পে এবং চুলে ভালোভাবে তেল লাগিয়ে নিন,খেয়াল রাখতে

চুলের আগা ফাটা রোধ করার ঘরোয়া উপায় সমূহ2019-07-03T00:07:15+06:00

ঘন এবং লম্বা চুল পেতে রমণীদের করণীয়

কিভাবে চুল এ অ্যালোভেরা ব্যাবহার করা হয়? অ্যালোভেরা চুলের অনেক সমস্যার প্রতিকার হিসাবে ব্যাবহার করা হয়।আপনি খুব সহজে বাসায় অ্যালোভেরা জেল তৈরি করতে পারবেন। একটি অ্যালোভেরা পাতা সংগ্রহ করে ছোট ছোট পিচ করে কেটে নিন।এরপর পাতার ভিতরের নরম আংশ বের করুন এবং ব্লেন্ড করুন। অথবা চামচ ব্যাবহার করেও আপনি জেল তৈরি করা সম্ভব। অ্যালোভেরা ব্যাবহারের কয়েকটি পদ্ধতি। ১. ক্যাস্টর অয়েল এবং অ্যালোভেরার ব্যাবহার উপকরনঃ ক. ১ কাপ ফ্রেশ অ্যালোভেরা জেল খ. ২ টেবিল চামচ ক্যাস্টর অয়েল গ. ২ টেবিল চামচ মেথিগুরা ঘ. শাওয়ার ক্যাপ ঙ. তোয়ালে প্রস্তুত কালঃ  ৫ মিনিট প্রস্তুত প্রক্রিয়াঃ ১. একটি বাটিতে সব উপকরন এক সাথে মিক্স করুন যতক্ষন পর্যন্ত মসৃণ পেস্ট তৈরি না হয়। ২. পেস্ট তৈরি হয়ে গেলে মিশ্রণটি ভালভাবে মাথার

ঘন এবং লম্বা চুল পেতে রমণীদের করণীয়2019-03-01T14:23:21+06:00