You are here:Home-সৌন্দর্য টিপস

মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু ঝটপট টিপস

মেহেদি ছাড়া ঈদ কল্পনাই করা যায় না। এবার ঈদেও নিশ্চয়ই প্রিয় দু’টি হাত রাঙাবেন মেহেদির রঙে । কিভাবে দিবেন, রঙ গারো হবে কিভাবে আর কত চিন্তা। চলুন জেনে নিই মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু টিপস, যা আপনার ঈদ এ মেহেদি পরতে ও লাগাতে অনেক সাহায্য করবে। কেমন নকশা দিবেনঃ ১। লম্বা হাতার পোশাক লম্বা হাতার পোশাক পরলে কনুই পর্যন্ত মেহেদি না পরাই ভালো।কনুই পর্যন্ত পরলে, মেহেদি ঢাকা পরবে। তাই আপনি যদি ছোট হাতার জামা বা একটু কম লম্বা জামা পরেন, তাহলে কনুই পর্যন্ত মেহেদি লাগাতে পারেন। ২। কালো মেহেদি কালো মেহেদি হাতের তালুতে না দিয়ে ওপরে দিতে পারেন। কালো মেহেদির ক্ষেত্রে জ্যামিতিক নকশাই ভাল। জ্যামিতিক ছাড়াও একটু চেক ধাঁচের, কোনাকুনি নকশাও চাইলে পরতে পারেন। পাশ্চাত্য পোশাকের

মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু ঝটপট টিপস2019-06-04T14:28:42+06:00

৫ মিনিটেই সুস্থ ও সুন্দর থাকার কিছু ঝটপট টিপস

৫ মিনিট সময়টাকে আমরা খুব বেশি গ্রাহ্য করি না। ভাবি, ৫ মিনিটে কিবা হতে পারে? অথচ ঘুমানোর আগে মাত্র ৫ মিনিট ব্যয়েই আপনি থাকতে পারবেন সুস্থ ও সুন্দর। জীবনে অতিবাহিত করা প্রতিটা সময়ই মূল্যবান। তাই সময়কে সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে হবে। কীভাবে ৫ মিনিটেই থাকতে পারবেন সুস্থ ও সুন্দর? জেনে নিন কয়েকটি সহজ উপায়- চুল আঁচড়ান : ঘুমানোর আগে নিয়মিত ২-৫ মিনিট চুল আঁচড়াবেন। এতে মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং মাথার ত্বক সুস্থ থাকবে। এর সাথে সাথে কমে যাবে চুল পড়া।প্রতিদিন নিয়মিত চুল আঁচড়ালে খুসকিসহ চর্মরোগ হবার সম্ভাবনা কমে যায়। তারসাথে প্রতিদিনের এই সামান্য যত্নে আপনার চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে ও সুন্দর। গ্রিন টি পান করুন : ঘুমানোর আগে অল্প কিছু সময় ব্যয়

৫ মিনিটেই সুস্থ ও সুন্দর থাকার কিছু ঝটপট টিপস2019-05-25T22:01:39+06:00

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন

লম্বা, টানটান ঝলমলে চুল কে না চায়। হাল ফ্যাশনে সোজা চুলের কদর তাই খুবই বেশি।বিউটি পার্লারগুলোতে চুলের রিবন্ডিং এর জন্য ভিড় চোখে পরার মতো। তবে রিবন্ডিং চুল দেখতে যেমন আকর্ষনীয় তেমনি এর রক্ষণাবেক্ষনও সমান গুরুত্বপূর্ণ।রিবন্ড করা চুল যত্নের অভাবে ভেঙে যায়, রুক্ষ হয় ও পড়ে যায়। এ জন্য প্রয়োজন অতিরিক্ত যত্নের।  যত্ন করার টিপসঃ ১।শ্যাম্পু করার আগে রাতে নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল চুলে ও স্কাল্পে ম্যাসাজ করে নিন। মোটা দাড়ের চিরুনি দিয়ে কিছুক্ষণ চুল আঁচড়ে নিন। গোসলের আগে গরম পানিতে তোয়ালে চুবিয়ে আধা ঘণ্টা চুল পেঁচিয়ে রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করুন। এতে রক্ত সাঞ্চালন বাড়বে ও রুক্ষভাব কমবে। ২।শ্যাম্পু করা সপ্তাহে কমপক্ষে তিনবার শ্যাম্পু করুন। কারণ রিবন্ডিং চুল খোলা রাখায় দ্রুত ময়লা হয়। বেশি শ্যাম্পু

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন2019-05-24T11:28:08+06:00

মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায়

মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায় মেছতার সমস্যায় ভুগতে দেখা যায় অনেককেই। মেছতা হওয়ার অন্যতম কারণ অপরিচ্ছন্ন ত্বক। ঘরোয়া উপায়ে মেছতা দূর করা ও ত্বক পরিষ্কার করার উপায়- ১। লেবু ত্বককে উজ্জ্বল করতে, ত্বকের কালো দাগ দূর করতে লেবুর জুড়ি নেই। এটি ব্লিচের কাজ করে। লেবুর রসের উচ্চমাত্রার সাইট্রিক এসিড ত্বকের অধিক তেল শোষণ করে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ থেকে ত্বককে রক্ষা করে। প্যাক তৈরির উপকরণ (ক) তাজা লেবুর রস ১ চা চামচ (খ) টমেটোর রস ১ চা চামচ উপকরণ গুলি এক সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। এটি ত্বকে লাগিয়ে হালকাভাবে ম্যাসাজ করুন এবং ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এক মাস ব্যাবহার করলে ত্বকের মেচতা দূর হবে। এছাড়া তাজা লেবুর রস ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ১৫ থেকে ২০

মেছতা দূর করার ঘরোয়া উপায়2019-07-03T00:06:42+06:00

গরমে রূপচর্চায় সতেজ থাকতে শসার প্যাকের জাদুকরি টিপস

যুগে যুগে রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে এসেছে নানা উপকরণ। এর মধ্যে শসা অন্যতম। গরমে কোনও কিছুই ভাল লাগে না করতে। এই গরমে মুখের সমস্যা হলে,জীবন হয়ে ওঠে আরও পেরাময়। তাই সহজেই আপনি আপনার মুখের যত্ন বা হালকা রূপচর্চায় নিজেকে সতেজ রাখতে পারেন শসা এর মাধ্যমে। আসুন জেনে নেই শসার প্যাক তৈরির নিয়মাবলী- কিউকাম্বার প্যাকঃ তৈলাক্ত ত্বক ১। তৈলাক্ত ত্বক নিয়ে সমস্যায় ভোগেন না এমন মানুষ নাই বলাই যায়। যাদের তৈলাক্ত ত্বক তারা প্রথমে ফেসওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে নিবেন। তারপর শশার রস, আপেল সাইডার ভিনেগার, টমেটোর রস এবং এলভেরা জেল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এতে করে ত্বকের তৈলাক্ত সমস্যা দূর হবে। ত্বকের রুক্ষভাব দূর ২। একটি শশা ব্লেন্ডারে ভালো মতো ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরী করতে হবে।

গরমে রূপচর্চায় সতেজ থাকতে শসার প্যাকের জাদুকরি টিপস2019-05-19T00:31:18+06:00

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ কম বেশি সবারি আছে। ছেলে মেয়ে উভয়েরি এটা হয়। হটাত করে শরীর এর পরিবরতনের ফলে এটা হয়ে থাকে। এতে করে ঘাবড়াবার কিছু নেই। নারিকেল তেল, অ্যালোভেরা, চিনি আরও অনেক কিছু দিয়েই দূর করা যায় "স্ট্রেচ মার্ক" বা ত্বকের ফাটা দাগ। স্ট্রেচ মার্ক কেন হয়? অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া কিংবা অতিরিক্ত ওজন থেকে দ্রুত চিকন হওয়া, সন্তান প্রসবের পর, বয়সন্ধিকালে শরীরে ফাটা দাগ দেখা দিতে পারে। ত্বক দ্রুত আকৃতি পরিবর্তন করলে বা সংকুচিত বা প্রসারিত হলে নারী-পুরুষ উভয়েরই এই দাগ হতে পারে। এর পেছনে কোনো রোগের ভূমিকা নেই। ত্বক যখন প্রসারিত হয়, তখন তার "কোলাজেন" দুর্বল হয়ে যায় এবং ত্বকের উপরিভাগে ফেটে যায় বা চেরা দাগ তৈরি হয়।   স্ট্রেচ

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়2019-05-01T11:41:30+06:00

রুপচর্চায় গ্রীন টির কার্যকরী ও সহজ উপায়

বহুগুণে ভরপুর গ্রিন টি সম্পর্কে কম বেশি সবাই অবগত। পানীয় বা চা হিসেবে এটি সকলের নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। সুস্থ দেহ, সুন্দর ত্বক ও ওজন কমাতে গ্রিন টি এখন অহরহ ব্যাবহার হয়ে আসছে। কিন্তু গ্রিন টি তৈরির পর সবাই টি ব্যাগটি ফেলে দেই,কিন্তু আপনারা হয়তো জানেন না যে এই ব্যাবহার করা টি ব্যাগটি আপনার কতটা কাজে আসতে পারে। রুপচর্চায় গ্রীন টি ব্যবহার করা গ্রিন টি ব্যাগ না ফেলে এটিকে দারুণ কিছু রূপচর্চার কাজে লাগাতে পারেন। চলুন জানে নেয়া যাক, সহজ কিছু কার্যকরী উপায়। ব্রণের সমস্যা সমাধানেঃ গ্রীন টি ব্রণের সমস্যা ট্রিটমেন্টের জন্য খুবই কার্যকরী একটি উপাদান। এটি ত্বকে কোন রকম ইরিটেশন বা ড্রাইনেস তৈরী করা ছাড়াই ব্রণ নির্মূল করে।আপনার আগের ত্বক ফিরিয়ে দেয়। টোনার: গ্রীন

রুপচর্চায় গ্রীন টির কার্যকরী ও সহজ উপায়2019-04-30T11:30:21+06:00

চোখের কাজল ছড়িয়ে পড়া রোধের সহজ টিপস

মেকআপ প্রেমীদের কাছে শীতকাল প্রিয়। মেকআপ যেভাবে রাখেন না কেন ঠিক সেভাবে থাকে। মেকআপ নষ্ট হওয়ার কোন ভয় থাকে না। আর গরমকাল ঘেমে সব মেকআপ নষ্ট হয়ে যায়। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়তে হয় কাজল নিয়ে। চোখে কাজল দিয়েছেন আর সেটা ছড়িয়ে পড়বে না, তা কী করে হয়। নারীদের খুব সাধারণ একটি সমস্যা হল চোখের কাজল ছড়িয়ে পড়া। নিয়মিত চোখে কাজল দেন যারা, তাদের সবার একটি সাধারণ সমস্যা থাকে কাজল ছড়িয়ে যাওয়ার। ওয়াটার প্রুফ কিংবা স্মুজ প্রুফ সহ যতো ধরনের কাজল ব্যবহারকারী আছেন, কমবেশি সবার মুখেই এই কাজল ছড়িয়ে যাবার অভিযোগটি শোনা যায়। আসলে কাজল জিনিসটিই এমন, ২-৪ ঘণ্টায় একটু হলেও তা ছড়ায়। কাজল ছড়িয়ে পড়া রোধ করুন সহজ কিছু কৌশলে। কাজল যেন না

চোখের কাজল ছড়িয়ে পড়া রোধের সহজ টিপস2019-04-25T12:36:43+06:00

সুন্দর ও ঝলমলে চুল পাওয়ার কার্যকরী সহজ উপায়

সুন্দর ত্বক পেতে ত্বকের যত্ন নিতে হয় তেমনি সুস্থ, সুন্দর ও ঝলমলে চুলও পেতে হলে চুল এর পরিচর্যা করা দরকার। সুন্দর ড্রেস আর জুতার সঙ্গে নিজেকে সাজাতে ঝলমলে ও সুন্দর চুলের জুড়ি নেই বললেই হয়।চুল বাধা সুন্দর হলে আপনাকে দেখতে সুন্দর লাগবে অতুলনীয়। সুন্দর চুলের আকাঙ্ক্ষা নেই, এমন মানুষ পাওয়া দুস্কর। তবে বিভিন্ন কারণে চুল মলিন হয়ে পড়তে পারে। চুল নারী সৌন্দর্যের একটি অন্যতম নিদর্শন। সঠিক পরিচর্যা না করলে চুল ধীরে ধীরে তার সৌন্দর্য হারিয়ে ফেলে হয়ে যায় মলিন ও রুক্ষ । তাই সব ঋতুতে চুলের যত্ন নিতে কিছু অত্যাবশ্যকীয় বিষয় মনে রাখা খুবই জরুরী। স্বাস্থ্যজ্জ্বল, সুন্দর ও আকর্ষণীও চুল পেতে চাইলে যা করতে হবে, তা হলো- চুল পরিষ্কার: ১।কমপক্ষে তিন দিন পর পর চুল

সুন্দর ও ঝলমলে চুল পাওয়ার কার্যকরী সহজ উপায়2019-04-24T11:06:11+06:00

রূপচর্চায় চালের গুঁড়ার জাদুকরী ৪ টি ঘরোয়া পদ্ধতি

সময়মতো ত্বকের যত্ন নিলে অনেক সমস্যা থেকেই পরিত্রান পাওয়া যায়। এ জন্য দামী প্রসাধনী কিনতে হবে বা ব্যাবহার করতে হবে তা কিন্তু নয়। আপনার হাতের কাছের জিনিস দিয়েই করতে পারবেন ত্বকের যত্ন।আমাদের শরীরের চামড়ায় প্রতিনিয়ত মৃতকোষ উঠে। মৃতকোষ গুলা উঠে গিয়ে সেখানে নতুন নতুন কোষ জন্মায়। মৃতকোষগুলো উঠে শরীরের উপরিভাগে ময়লার আস্তরণ তৈরি করে এবং এতে ত্বকের মসৃণটা কমে গিয়ে ত্বক খসখসে হয়ে যায়। মৃতকোষ পরিষ্কার করার জন্য স্ক্রাব হল সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি। এর জন্য চালের গুড়া ভাল স্ক্রাব এর কাজ করে। রূপচর্চায় চালের গুঁড়া ১। চালের গুড়া ও দুধ এর মাস্কঃ চালের গুড়া =( ২ টেবিল চামচ) দুধ =(২ চা চামচ ), লেবুর রস =(২ চা চামচ ) পরিমান মতো পানি মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি

রূপচর্চায় চালের গুঁড়ার জাদুকরী ৪ টি ঘরোয়া পদ্ধতি2019-04-22T15:01:15+06:00

কপালের আশেপাশে চুল কমে যাওয়া রোধ করার ঘরোয়া উপায়

অনেক মানুষ আছেন যাদের কপাল অনেক বড় থাকে এবং তাঁরা তাঁদের এই বড় কপাল ঢাকার জন্য বিভিন্ন রকম হেয়ার কাট দিয়ে থাকেন। কপালে চুল কম থাকলে কপাল বড় ও চ্যাপ্টা দেখায়। যা মুখের স্বাভাবিক গড়ন বা সুন্দর এর বাঁধা হয়ে দারায়।যদি ঘরোয়া উপায়ে প্রাকৃতিক ভাবেই আবার সেই চুল গজানো যায় বা চুল ফিরে পাওয়া যায় তাহলে অনেক টাকা খরচ করে হেয়ার ট্রিটমেন্ট কেন করবেন বলেন তো? আসুন জেনে নেই কিভাবে ঘরোয়া উপায়ে কপালের চুল গজানো যায়। সাধারণত হরমোনের পরিবর্তন, জেনেটিক কারণ বা পুষ্টির অভাবে চুল পড়ার সমস্যা হয় । চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে অ্যালোপেসিয়া । কপালের সামনের দিক থেকে চুল ওঠা শুরু করে আস্তে আস্তে পেছনের দিকে যেতে শুরু করে এবং একসময় মাথায় টাক

কপালের আশেপাশে চুল কমে যাওয়া রোধ করার ঘরোয়া উপায়2019-04-21T17:51:09+06:00

মুখের অতিরিক্ত ছোট ছোট কালো তিল দূর করার ঘরোয়া উপায়

মুখে অতিরিক্ত ছোট ছোট তিল হওয়া স্কিন ক্যান্সারের পূর্ব লক্ষণ। আপনি একজন ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে পারেন। তবে ভয়ের কিছু নেই । অতিরিক্ত এই তিলের দাগ কিছু প্রাকৃতিক উপায়েই কমানো যেতে পারে। এর জন্য আপনি গরম পানিতে আটার পেস্ট বানিয়ে মুখে নিয়মিত লাগাতে পারেন। এছাড়াও শসার রসও লাগাতে পারেন। এগুলো মুখের অতিরিক্ত ছোট ছোট তিলের দাগ হালকা করতে সাহায্য করে। বাজারে ফ্রিকেলস আউট বা তিল দূর করার বিভিন্ন ধরনের ক্রিম পাওয়া যায় । যা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্লিচিং উপাদান দিয়ে তৈরি করা। ব্লিচিং উপাদান ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই এই ক্রিম মুখের ত্বকে না লাগানো উচিত। এর পরিবর্তে বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করাই উচিত । মুখে ছোট ছোট কালো তিল দূর করার উপায়ঃ ১। পেঁয়াজঃ প্রথমে একটি

মুখের অতিরিক্ত ছোট ছোট কালো তিল দূর করার ঘরোয়া উপায়2019-04-21T11:50:44+06:00

প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু সহজ কৌশল

চুল একজন নারীর সুন্দর প্রকাশের অন্যতম জিনিষ। অনেকের কোঁকড়া চুল নিয়ে অনেক সময় নানা ঝামেলায় পরতে হয় । অনেক সময় নিজেও অস্বস্তি বোধ করে। বা অনেকে একটু বারতি সুন্দর হওয়ার জন্য বা নিজেকে আকর্ষণীয় করার জন্য চুল সোজা করতে চান। তখনি অনেকে পরেন নানা ঝামেলায়। তাই সেই সব ঝামেলা এড়িয়ে সহজ কিছু কৌশল দেয়া হল কোঁকড়া চুল সোজা করার। প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু কৌশলঃ ১. নারকেল এবং লেবুঃ একটি ভাল দেখে তাজা নারকেলের দুধের সাথে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ভালো ভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এই মিশ্রণটিকে কয়েক ঘণ্টা ধরে ফ্রিজে রেখে সংরক্ষন করতে হবে। ফ্রিজ থেকে বের করলে একটি ঘন ক্রিমি লেয়ার দেখা যাবে পাত্রের উপরে। এই লেয়ারটা দিয়ে চুল সোজা করার কাজে

প্রাকৃতিক উপায়ে চুল সোজা করার কিছু সহজ কৌশল2019-04-19T19:24:22+06:00

রমযানে প্রাণহীন ও নিস্তেজ ত্বকের যত্নের প্রয়োজনীয় টিপস

রমজানে সারাদিন রোজা রাখার ফলে ত্বক কিছুটা প্রাণহীন ও নিস্তেজ হয়ে পরে। পানির অভাবে ত্বক ত্বকের আর্দ্রতা কমে যায়। রমযান মাসে সিয়াম সাধনার পাশাপাশি এ সময় প্রয়োজন ত্বকের বিশেষ যত্নের। তাই সিয়াম সাধনার পাশাপাশি সহজেই ঘরোয়া ভাবে ত্বকের যত্নের কিছু কার্যকরী টিপস দেয়া হলঃ ব্রণ দূর করার কাজ: সারাদিন রোজা রেখে ইফতারিতে সবাই মুখরোচক খাবার যেমন ভাজা ও তইলাক্ত খাবার বেশি খাওয়া হয়। তাই অনেক বেশি ভাজা খাবার খাওয়ার ফলে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়। এর ফলে ত্বকে ব্রণ হয়। ত্বক হয়ে যায় নিস্তেজ ও প্রাণহীন। কাঁচা হলুদ ও চন্দনকাঠের গুঁড়া ব্রণের জন্য খুবই কার্যকর উপাদান। সমপরিমাণ কাঁচা হলুদ বাটা ও চন্দন কাঠের গুঁড়া একসাথে নিয়ে পরিমাণমতো পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। মিশ্রণটি ব্রণ আক্রান্ত জায়গায়

রমযানে প্রাণহীন ও নিস্তেজ ত্বকের যত্নের প্রয়োজনীয় টিপস2019-04-19T13:50:38+06:00

রোদে পোড়া দাগ দূর করার সহজ ১৪ টি ঘরোয়া উপায়

গরমের সময় তাপমাত্রার পরিমান বেড়ে যায়। এ সময় বাইরে গেলে রোদের তাপে ত্বকের ক্ষতি হয় প্রচণ্ড ভাবে। তাই রোদে দীর্ঘক্ষণ থাকার ফলে ত্বক পুড়ে কালচে হয়ে যায়। আর যতই সানস্ক্রিন লাগিয়ে রোদে যান না কেন ত্বক কালচে হবেই। তাই সানবার্ন থেকে রক্ষা পেতে নিয়মিত সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করা জরুরি। এর পাশাপাশি প্রখর রোদে ছাতা ব্যবহার করুন। তারপরেও ত্বক রোদে পুড়ে গেলে তা ঘরোয়া উপায়েই দূর করতে পারেন, পোড়া দাগ। চলুন জেনে নেয়া যাক কীভাবে দূর করবেন রোদে পোড়া দাগ- পোড়া দাগ দূর করার উপায়ঃ গোসলঃ  ১। দিনে কমপক্ষে দুবার ঠান্ডা পানি দিয়ে গোসল করুন। এতে ত্বকের পোড়া ভাব দূর হবে ও সতেজ থাকবে। আলুঃ ২। বাসায় ফিরে এসে আলু ব্লেন্ড করে মুখে লাগান। এতে কালচে

রোদে পোড়া দাগ দূর করার সহজ ১৪ টি ঘরোয়া উপায়2019-04-17T16:19:28+06:00

তৈলাক্ত ত্বকের যন্ত্রণা থেকে চিরতরে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া টিপস

তৈলাক্ত ত্বকের যন্ত্রণা থেকে চিরতরে মুক্তি পাওয়ার কিছু ঘরোয়া টিপস যাদের ত্বক তৈলাক্ত,তারা ত্বক নিয়ে বেশী সমস্যায় পড়েন। তেল চিটচিটে ভাবের জন্য মুখে কোনো কিছুই মানায় না। আবার ত্বকের তৈলাক্ততার জন্য উপরিভাগে জমে ময়লা। সব মিলিয়ে তৈলাক্ত ত্বক খুব সহজেই ব্রণের আক্রমণের শিকার হয়। ভালো ফেসওয়াশ, দামী ফেসিয়াল ইত্যাদি যত যাই করুন না কেন, তৈলাক্ত ত্বক থেকে মুক্তি মেলে না। কিছুক্ষণ পরই ফিরে আসে তেল চিটচিটে ত্বক আর আপনার মলিন হওয়া চেহারা। ১। লবণের স্প্রে উপকরণ ও পরিমাপ (ক) স্প্রে বোতল ১টি (খ) পানি ১ কাপ (গ) লবন ১ টেবিল চামচ ব্যাবহার বিধি লবণের রয়েছে ভেতর থেকে ত্বকের তেল-ময়লা দূর করার ক্ষমতা। তাই এটা খুব কার্যকরী ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে। একটি স্প্রে বোতলে পানি নিয়ে

তৈলাক্ত ত্বকের যন্ত্রণা থেকে চিরতরে মুক্তি পাওয়ার ঘরোয়া টিপস2019-07-03T00:07:00+06:00

গরমে শরীর ঠাণ্ডা রাখার প্রয়োজনীয়ও টিপস

এই গ্রীষ্মকালে শীতল থাকাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। একজন ব্যক্তি যদি তাপমাত্রাকে মানিয়ে চলে তাহলে সে তার শরীরকে স্বাভাবিক ও সুস্থ রাখতে পারবে । আর তার জন্য তাকে সেই সকল বিষয়গুলো সম্পর্কে ভালভাবে জানা অত্যন্ত প্রয়োজন, যাতে করে সে অসুস্থতা থেকে নিজেকে সংরক্ষণ করতে পারেন। যা যা করতে হবেঃ শারীরিক পরিশ্রম কম করুনঃ ব্যায়াম আমাদের শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপুর্ন । কিন্তু গরমকালে এই ব্যায়াম বেশি করলে আমাদের জন্য কষ্টের কারন হয়। তাই গরমে সব সময় বেশি ব্যায়াম মোটেই ভাল না। এতে শরীর থেকে প্রচুর এন্যারজি শেষ হয়। তার ফলে দেহে পানিশূন্যতা দেখা দেয়। এতে শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ার সম্ভাব বেশি থাকে। তাই গরমের দিনে একটু কম ব্যায়াম করতে হবে, সাথে প্রচুর পানি খেতে হবে । সকালে বায়ু খুলতে

গরমে শরীর ঠাণ্ডা রাখার প্রয়োজনীয়ও টিপস2019-04-08T11:53:56+06:00

মুখের অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার কারন ও দূর করার ঘরোয়া উপায়

মুখের অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার কারন ও দূর করার ঘরোয়া উপায় বর্তমান সব মেয়েদের একটি কমন সমস্যা হচ্ছে অবাঞ্ছিত লোম। মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার অনেক ধরণের ব্যবস্থা রয়েছে। তবে বেশিরভাগই বেশ কষ্টদায়ক। অনেক ক্ষেত্রে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও থাকে। মুখের এই অবাঞ্ছিত লোম দূর করার কিছু ঘরোয়া সহজ পদ্ধতি রয়েছে। এই পদ্ধতিগুলো প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে তৈরি করা হয় বলে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। হিরসুটিজম বা অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার প্রধান কারণ : ১। নারীর রক্তে পুরুষ হরমোন এন্ড্রোজেনের মাত্রা বৃদ্ধি পেলে ২। জেনেটিক কারণে এবং ৩। হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে। যাদের এই সমস্যা আছে লজ্জার কিছু নেই। সুখবর হচ্ছে অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য ব্যয়বহুল ও ব্যথাযুক্ত ট্রিটমেন্ট করার পরিবর্তে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করেই এই অস্বস্তিকর সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে

মুখের অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার কারন ও দূর করার ঘরোয়া উপায়2019-04-07T17:47:46+06:00

হলুদ দাঁত কিভাবে সাদা করবেন তার ঘরোয়া টিপস

নিজেকে আকর্ষণীয় করে উপস্থাপন করতে কে না চায়? তার জন্য শুধু সুন্দর চেহারার অধিকারী হতে হবে এমনটা ভাবার কোনও কারণ নেই। এর জন্য আপনার ঝকঝকে দাঁতের মুক্তো ঝরা হাসিই যথেষ্ট হবে। দাত বিভিন্ন কারণে হলুদ হয়ে যায়। যার কারণে অনেক সময় নানা রকম বিব্রতকর অবস্তায় পড়তে হয়। এমনকি নিজের কাছেও নিজেকে বিব্রত মনে হয়। তাই চলুন জেনে নেয়া যাক, হলুদ দাত সাদা করার কিছু ঘরোয়া  উপায়। দাত হলুদ কেন হয়? ১। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের পাশাপাশি দাঁতেরও ক্ষয় হয়। ২। জিনগত কারণ । ৩। ভালো করে দাঁত পরিষ্কার না করা । ৪। মাত্রাতিরিক্ত পরিমাণ চা- কফি পান। ৫। প্রচুর চকলেট, ডার্ক চকলেট চিনিযুক্ত খাবার খাওয়া। ৬। কালো চা পান করা। কোলা, সোডা পান করা।

হলুদ দাঁত কিভাবে সাদা করবেন তার ঘরোয়া টিপস2019-04-05T14:05:07+06:00

দাতের যত্নে ব্রাশ এর সঠিক যত্ন নেয়ার উপায়

দাঁতঃ দাঁত মেরুদণ্ডী প্রাণীদের মুখে অবস্থিত একটি অঙ্গ।দাত খাদ্য চর্বণ বা চিবাতে ও কর্তনের (কাটা) কাজে ব্যবহৃত হয়। অধিকাংশ প্রাণীর দেহে দাঁতই হচ্ছে কঠিনতম অঙ্গ। দাঁতের প্রকারভেদঃ ১। মোলার বা সাদা বাংলায় কষ দাঁতঃ এটি খাদ্যকে চিবিয়ে পিষে ফেলার কাজে বব্যাবহার হয়। ২। কার্নাসিয়াল দাঁতঃ এটি ব্যবহৃত হয় খাদ্য কর্তনের কাজে। এটি কেবল শ্বাপদ (মাংসাশী) প্রাণীদের মধ্যেই দেখা যায়। ৩। প্রি-মোলার দাঁতঃ এটি মোলার দাঁতের মতই, কিন্তু আকারে ছোট এবং অনেক সময় এদেরকে বাইকাস্পিডও বলা হয়। ৪। শ্বদন্ত বা ক্যানাইনঃ এটি খাদ্য ছিঁড়ে ফেলার কাজে ব্যবহৃত হয়। একে কাস্পিড দাঁতও বলে। ৫। ছেদক দন্ত বা ইন্সিসরঃ এটি খাদ্য ছেদনের কাজে ব্যবহৃত হয়। ব্রাশ এর যত্নঃ ১। সঠিক টুথব্রাশ বাছাই করুন: যে টুথব্রাশটির শলাকা শক্ত তা

দাতের যত্নে ব্রাশ এর সঠিক যত্ন নেয়ার উপায়2019-04-04T13:54:52+06:00