You are here:Home-Kamrun Nahar

About Kamrun Nahar

This author has not yet filled in any details.
So far Kamrun Nahar has created 55 blog entries.

এই কুরবানি ঈদের বিশেষ রেসিপি পর্দা পোলাও

পর্দা পোলাও হতে পারে এই ঈদের ভিন্নমাত্রার বিশেষ কিছু। কুরবানির এই ঈদে সবাই চায় মাংস একটু ভিন্ন ভিন্ন ভাবে স্বাদ নিতে। তাই আপনি চাইলেই খুব সহজেই পারবেন এই পর্দা পোলাও রান্না করতে এই সহজ রেসিপিএর সাথে। বাসায় মেহমান এলে বা নিজেদেরি জন্য হতে পারে সাধারনের ভিতরে অসাধারান কিছু। চলুন দেখে নেই পর্দা পোলাওয়ের সহজ রেসিপি- পর্দা বিরিয়ানি উপকরণ: মাংস রান্নার উপকরনঃ গরুর মাংস =২ কেজি, বিরিয়ানি মসলা =৩ টেবিল চামচ, আদার রস =সিকি কাপ, রসুনের রস= সিকি কাপ, এলাচি =২টি, দারুচিনি =২ টুকরা, বড় এলাচি =২টি, স্টার অ্যানিস =১টি, লবঙ্গ =৩-৪টি, শাহি জিরা =আধা চা-চামচ, ঘি ও তেল =আধা কাপ, টক দই =আধা কাপ, পেঁয়াজ বেরেস্তা =আধা কাপ, পেঁয়াজকুচি =আধা কাপ, আস্ত কাঁচা মরিচ =১০–১২টি

এই কুরবানি ঈদের বিশেষ রেসিপি পর্দা পোলাও2019-08-08T21:10:42+06:00

ঈদের মজাদার ভিন্ন স্বাদের কাশ্মিরি পোলাও

কাশ্মীরি পোলাও পোলাও আমাদের সবারই পছন্দ। কোন একটা উপলক্ষ পেলেই, সবাই চাই খাবার এ একটু ভিন্নমাত্রা দিতে পোলাও রান্না করে। কিন্তু সেই পোলাও এই যদি আর একটু ভিন্নমাত্রা আনা যায় কমন হবে? অবশ্যই ভাল কিছু হবে। নতুনত্ব আসবে খাবারে, খেতেও একটা নতুনত্ব আসবে। আর সেই নতুনত্ব যদি হয় কাশ্মীরি পোলাও ? তাহলে তো কথাই নেই। অতিথি আপ্যায়ন বা বিশেষ দিনে, কাশ্মিরি পোলাও এনে দিবে খাবারের ভিন্ন স্বাদ এবং মজাদার অনুভুতি।  আর আসছে কোরবানির ঈদে এটা হতে পারে পুরনো স্বাদেই নতুন কিছু। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক, কিভাবে রান্না করতে হয় মজাদার ভিন্ন স্বাদ এর- কাশ্মিরি পোলাও। উপকরণঃ পোলাওয়ের চাল =২ কাপ, ঘি =আধা কাপ, নারকেল দুধ =১ কাপ, গুঁড়া দুধ =২ টেবিল চামচ, আদাবাটা =১

ঈদের মজাদার ভিন্ন স্বাদের কাশ্মিরি পোলাও2019-08-01T17:31:09+06:00

সাজগোজের ফ্যাশন বা স্টাইল এর পূর্ণতায় চাই ঘড়ি

ঘড়ি জীবন চলার পথের অন্যতম অনুষঙ্গ। সময়ের বিবর্তনে এর ফলে জায়গা দখল করেছে মুঠোফোন। তাই ঘড়ির অবস্থান এখন প্রয়োজনের চেয়ে বেশি ফ্যাশনে।প্রয়োজনের সঙ্গে ফ্যাশনের কথা মাথায় রেখে তরুণ-তরুণী অর্থাৎ তরুন প্রজন্মের সবার কাছেই হাতঘড়ির ব্যবহারে পরিবর্তন এসেছে। বাজার ঘুরলে দেখা যায় ঘড়িগুলোতে ডায়াল ও চেনে এসেছে ভিন্নতা। তবে তরুণদের কাছে সব সময় ব্র্যান্ডের ঘড়িগুলোই সবসময় চাহিদার শীর্ষে থাকে। কারণ এগুলো যেমন দেখতে ফ্যাশনেবল, তেমনি টেকেও অনেক দিন। কার জন্য কেমন ঘড়ি আপনি প্রথমেই ঠিক করুন কোন ধরনের ঘড়ি ব্যবহার করতে চান। বাজারে আছে ব্যাটারিচালিত কোয়ার্টজ মুভমেন্ট ঘড়ি ও মেকানিজম মুভমেন্ট ঘড়ি। এর বাইরেও ডিজিটাল ঘড়ি আছে, এতে আছে প্রযুক্তির সব সুবিধা। আবার কোয়ার্টজ মুভমেন্টে ঘড়ি প্রতি সেকেন্ডে কয়েক হাজারবার ভাইব্রেশন দিয়ে থাকে। এই ঘড়ির ব্যাটারি

সাজগোজের ফ্যাশন বা স্টাইল এর পূর্ণতায় চাই ঘড়ি2019-07-18T17:45:21+06:00

ইদ স্পেসিয়াল মজাদার শাহজাহানি বিরিয়ানি

যাঁরা ভালোবাসেন রান্না করতে, খাওয়াতে এবং নতুন খাবার চেখে দেখতে।তাদের জন্য হতে পারে একটু ভিন্ন স্বাদের শাহজাহানি বিরিয়ানি।শাহজাহানি বিরিয়ানি খেতে ইচ্ছা হলেও না জানার ফলে বা জানলেও ঘাবড়ানোর ফলে রান্না করা হয় না। তাই তাদের জন্য এই সহজ রেসিপি। শাহজাহানি বিরিয়ানি উপকরণ খাসির সামনের রান ১ কেজি, জাফরান আধা টেবিল চামচ, বাসমতী চাল ৫০০ গ্রাম বা ২ কাপ, টকদই আধা কাপ, ঘি ১ কাপ, পেঁয়াজ স্লাইস ১ কাপ, কাজুবাদাম সিকি কাপ, পেস্তা কুচি সিকি কাপ, কাঠবাদাম কুচি সিকি কাপ, কিশমিশ সিকি কাপ, তিল ৫ টেবিল চামচ, কোরানো নারকেল ৫ টেবিল চামচ, আদা (মিহি ঝুরি) ১ টেবিল চামচ, রসুন কুচি ১ চা-চামচ, জিরা ১ চা-চামচ, লালমরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ, এলাচি ৪টি, দারুচিনি ১ ইঞ্চির ৪ টুকরা,

ইদ স্পেসিয়াল মজাদার শাহজাহানি বিরিয়ানি2019-06-06T23:20:15+06:00

লোভনীয় চিংড়ি মাছের মালাইকারীর সহজ রেসিপি

মাছের কোনো রেসিপির কথা মনে করলে সবার আগে চিংড়ি মাছের নাম মাথায় আসে। চিংড়ি মাছ সবারই খুব প্রিয় খাবার। নানান ভাবে রান্না করে কিংবা ভেজে চিংড়ি মাছ খেতে ভালোবাসেন অনেকেই। খুবই সাধারণ পদ্ধতির রান্নায় একটু ভিন্ন স্বাদ পেতে চাইলে রাঁধতে পারেন চিংড়ি মাছের মালাইকারি। আর গরম ভাতের সাথে চিংড়ি মাছের মালাইকারি হলে তো কোনো কথাই নেই। আর চিংড়ি মাছ তো ছোট বড় সবার পছন্দ . . . বাঙালির ভোজন তালিকায় মাছ ছাড়া সম্পন্ন হয়না. . . কথায় আছে মাছে ভাতে বাঙালী . . . তাই আজ আপনাদের জন্য আমাদের আয়োজন চিংড়ি মাছের মালাই কারি . . . খুবই সুশাদু ও মুখরোচক এই চিংড়ি মাছের মালাই কারি। চিংড়ি মাছের মালাইকারী যা লাগবে : মাঝারি সাইজের চিংড়ি

লোভনীয় চিংড়ি মাছের মালাইকারীর সহজ রেসিপি2019-06-05T14:12:17+06:00

বিফ ও মাটন কোপ্তা পোলাও এর ২ টি মজাদার রেসিপি

দাওয়াত, ঈদ কিংবা অনুষ্ঠান-অতিথি আপ্যায়নে পোলাও থাকবে, এটা মোটামুটি ধরে নেওয়া যায়। আপনি চাইলে এই পোলাওতে আনতে পারেন বৈচিত্র্য।তেমনি বৈচিত্র্যময় ২ টি পোলাও এর আইটেম হল- কোপ্তা পোলাও এবং মাটন পোলাও। কোপ্তা পোলাও ও মাটন পোলাও এর অসাধারন ২ টি রেসিপি দেয়া হলঃ  বিফ কোপ্তা পোলাও যা লাগবে : গরুর মাংসের মিহি কিমা ৫০০ গ্রাম, আদাবাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, লালমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, জিরাগুঁড়া আধা চা চামচ, গরম মশলার গুঁড়া আধা চা চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, জায়ফল ও জয়ত্রী গুঁড়া সিকি চা চামচ, লেবুর রস ১ চা চামচ, টমেটো সস ২ চা চামচ, চিনি সামান্য, পেঁয়াজ বেরেস্তা ৩ টেবিল চামচ, ধনেপাতা ও পুদিনা পাতা কুচি ১ টেবিল

বিফ ও মাটন কোপ্তা পোলাও এর ২ টি মজাদার রেসিপি2019-06-05T13:29:30+06:00

মজাদার মোরগ মোসাল্লাম বা আস্ত মুরগীর রোস্ট

খুবই আকর্ষনীয় এবং সুস্বাদু একটি খাবারের নাম মোরগ মোসাল্লাম। ঈদ উৎসবে জামাই বাবাজী আপনার বাড়ী এল আর আপনি তাকে বিশেষ কিছু মনে রাখার মত খাবার খাওয়াবেন না, তা কি করে হয়। কিন্তু রেসিপি জানা না থাকার কারণে সুস্বাদু এই খাবারটি খাওয়ানর সুযোগ হারাচ্ছেন অনেকেই।এই রেসিপিটির মাধ্যমে আপনি ঘরের সাধারণ কড়াই বা হাড়িতেই তৈরি করতে পারবেন মুখরোচক মোরগ মোসাল্লাম। মোরগ মোসাল্লাম যা লাগবে : মোরগ ৩টি (৩ কেজি), আদাবাটা ৩ টেবিল চামচ, রসুনবাটা দেড় টেবিল চামচ. পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ, বাদাম বাটা ২ টেবিল চামচ, পোস্তদানা বাটা ২ টেবিল চামচ, টক দই আধা কাপ, মিষ্টি দই আধা কাপ, পেঁয়াজকুচি আধা কাপ, বেরেস্তা আধা কাপ, কিশমিশ বাটা ২ টেবিল চামচ, জায়ফল ও জয়ত্রীগুঁড়া আধা চা চামচ, মাওয়া

মজাদার মোরগ মোসাল্লাম বা আস্ত মুরগীর রোস্ট2019-06-05T11:08:24+06:00

বাড়িতে সহজেই তৈরি করুন লোভনীয় মুরগির রোষ্ট

চিকেন রোস্ট বা  মুরগির রোষ্ট আমাদের আপ্যায়নের নিত্যদিনের একটা পদ যা পোলাও এর সাথে না দিলেই নয় যেন। আমাদের দেশের সবাই কম বেশি অতিথি আপ্যায়ন করতে পছন্দ করি। অতিথি আপ্যায়ন আমাদের সংস্কৃতির অন্যতম দিক। তাই আমরা সবাই অতিথি আপ্যায়নের ক্ষেত্রে সবার আগে পোলাও এর সাথে মুরগির রোস্ট খাওয়ানোর কথা বলে থাকি।বিশেষ করে যারা চিকেন পছন্দ করেন,তারা জন এটা ছারা পোলাও মুখেই তুলতে চায়না ।যারা এই ঈদ এ অতিথি আপ্যায়নে আপনিও পারবেন সহজেই চিকেন রোস্ট এর সাথে অতিথি আপায়ন।চলুন জেনে নেয়া যাক কি ভাবে রান্না করতে হবে মুরগির রোষ্ট। মুরগির রোষ্ট যা লাগবে : মুরগি মাংস ৪ পিস, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, মাওয়া ১ টেবিল চামচ, কাঠবাদাম বাটা ১ টেবিল

বাড়িতে সহজেই তৈরি করুন লোভনীয় মুরগির রোষ্ট2019-06-04T21:29:20+06:00

মেজবানি গরুর মাংস রান্নার পারফেক্ট রেসিপি

ঐতিহ্যবাহী মেজবানি মাংসের সুনাম আছে পুরো দেশ জুড়ে। আক্ষরিক অর্থেই অতুলনীয় একটা খাবার। যিনি একবার খেয়েছেন, আজীবন তিনি এর স্বাদ মনে রাখবেন।মজাদার এই খাবারের "সিক্রেট" রেসিপি কিন্তু বাবুর্চিরা দিতে চান না। তাই মন চাইলেও অনেক সময় খাওয়া খাওয়া করেও খাওয়া হয়ে উঠে না। ঘরেই যতই রান্না করুন না কেন, ঠিক যেন বাবুর্চির হাতের স্বাদ মেলে না। চিন্তা নেই, এখন থেকে আপনার রান্না মেজবানি মাংসও হবে ঠিক বাবুর্চিদের মতই। চলুন দেখা যাক কিভাবে রান্না করতে হয় মজাদার মেজবানি গরুর মাংস। মেজবানি গরুর মাংস যা লাগবে : গরুর মাংস ৫০০ গ্রাম, আদা বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা চামচ, লাল মরিচ ১ চা চামচ, পেঁয়াজ মোটা করে কাটা ২ টেবিল চামচ, লবণ আধা চা চামচ,

মেজবানি গরুর মাংস রান্নার পারফেক্ট রেসিপি2019-06-04T17:21:37+06:00

মজাদার ঝটপট ঝাল চিকেন বিরিয়ানির প্রনালি

বিরিয়ানি মানেই মিষ্টি স্বাদের।বিরিয়ানি মানেই বিশেষ কিছু দিনের বা মুহূর্তের বিশেষ কিছু।বিরিয়ানি পছন্দ করে না বা খায় না, এমন মানুষ পাওয়াই দুস্কর।যারা একটু মিষ্টি কম খান বা ঝাল পছন্দ করেন,তাদের জন্য এবার নতুন কিছু হল ঝাল চিকেন বিরিয়ানি। বিরিয়ানি ঝালও হতে পারে? হ্যাঁ বিরিয়ানি ঝালও হতে পারে। বিরিয়ানি রান্নার উপায় হয়তো আমরা জানি কিন্তু ঝাল বিরিয়ানি? চলুন জেনে নেয়া যাক,কিভাবে ঝাল চিকেন বিরিয়ানি রান্না করতে হয়ঃ ঝাল চিকেন বিরিয়ানি উপকরণ : মুরগি দেড় কেজি। বাসমতি বা পোলাওয়ের চাল ১ কেজি। পেঁয়াজ ১ কাপ। আদাবাটা ২ টেবিল-চামচ। রসুনবাটা ২ টেবিল-চামচ। বিরিয়ানির মসলা ৩ টেবিল-চামচ। টক দই ৪ টেবিল-চামচ। মরিচগুঁড়া দেড় টেবিল-চামচ। পুদিনাপাতা বাটা আধা টেবিল-চামচ। ধনেপাতা বাটা ১ টেবিল-চামচ। কাঁচামরিচ বাটা ১ টেবিল-চামচ। সরিষার তেল ১/৪

মজাদার ঝটপট ঝাল চিকেন বিরিয়ানির প্রনালি2019-06-04T16:27:30+06:00

মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু ঝটপট টিপস

মেহেদি ছাড়া ঈদ কল্পনাই করা যায় না। এবার ঈদেও নিশ্চয়ই প্রিয় দু’টি হাত রাঙাবেন মেহেদির রঙে । কিভাবে দিবেন, রঙ গারো হবে কিভাবে আর কত চিন্তা। চলুন জেনে নিই মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু টিপস, যা আপনার ঈদ এ মেহেদি পরতে ও লাগাতে অনেক সাহায্য করবে। কেমন নকশা দিবেনঃ ১। লম্বা হাতার পোশাক লম্বা হাতার পোশাক পরলে কনুই পর্যন্ত মেহেদি না পরাই ভালো।কনুই পর্যন্ত পরলে, মেহেদি ঢাকা পরবে। তাই আপনি যদি ছোট হাতার জামা বা একটু কম লম্বা জামা পরেন, তাহলে কনুই পর্যন্ত মেহেদি লাগাতে পারেন। ২। কালো মেহেদি কালো মেহেদি হাতের তালুতে না দিয়ে ওপরে দিতে পারেন। কালো মেহেদির ক্ষেত্রে জ্যামিতিক নকশাই ভাল। জ্যামিতিক ছাড়াও একটু চেক ধাঁচের, কোনাকুনি নকশাও চাইলে পরতে পারেন। পাশ্চাত্য পোশাকের

মেহেদি পরার টুকিটাকি কিছু ঝটপট টিপস2019-06-04T14:28:42+06:00

৫ মিনিটেই সুস্থ ও সুন্দর থাকার কিছু ঝটপট টিপস

৫ মিনিট সময়টাকে আমরা খুব বেশি গ্রাহ্য করি না। ভাবি, ৫ মিনিটে কিবা হতে পারে? অথচ ঘুমানোর আগে মাত্র ৫ মিনিট ব্যয়েই আপনি থাকতে পারবেন সুস্থ ও সুন্দর। জীবনে অতিবাহিত করা প্রতিটা সময়ই মূল্যবান। তাই সময়কে সঠিক ভাবে কাজে লাগাতে হবে। কীভাবে ৫ মিনিটেই থাকতে পারবেন সুস্থ ও সুন্দর? জেনে নিন কয়েকটি সহজ উপায়- চুল আঁচড়ান : ঘুমানোর আগে নিয়মিত ২-৫ মিনিট চুল আঁচড়াবেন। এতে মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং মাথার ত্বক সুস্থ থাকবে। এর সাথে সাথে কমে যাবে চুল পড়া।প্রতিদিন নিয়মিত চুল আঁচড়ালে খুসকিসহ চর্মরোগ হবার সম্ভাবনা কমে যায়। তারসাথে প্রতিদিনের এই সামান্য যত্নে আপনার চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে ও সুন্দর। গ্রিন টি পান করুন : ঘুমানোর আগে অল্প কিছু সময় ব্যয়

৫ মিনিটেই সুস্থ ও সুন্দর থাকার কিছু ঝটপট টিপস2019-05-25T22:01:39+06:00

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন

লম্বা, টানটান ঝলমলে চুল কে না চায়। হাল ফ্যাশনে সোজা চুলের কদর তাই খুবই বেশি।বিউটি পার্লারগুলোতে চুলের রিবন্ডিং এর জন্য ভিড় চোখে পরার মতো। তবে রিবন্ডিং চুল দেখতে যেমন আকর্ষনীয় তেমনি এর রক্ষণাবেক্ষনও সমান গুরুত্বপূর্ণ।রিবন্ড করা চুল যত্নের অভাবে ভেঙে যায়, রুক্ষ হয় ও পড়ে যায়। এ জন্য প্রয়োজন অতিরিক্ত যত্নের।  যত্ন করার টিপসঃ ১।শ্যাম্পু করার আগে রাতে নারিকেল তেল বা অলিভ অয়েল চুলে ও স্কাল্পে ম্যাসাজ করে নিন। মোটা দাড়ের চিরুনি দিয়ে কিছুক্ষণ চুল আঁচড়ে নিন। গোসলের আগে গরম পানিতে তোয়ালে চুবিয়ে আধা ঘণ্টা চুল পেঁচিয়ে রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করুন। এতে রক্ত সাঞ্চালন বাড়বে ও রুক্ষভাব কমবে। ২।শ্যাম্পু করা সপ্তাহে কমপক্ষে তিনবার শ্যাম্পু করুন। কারণ রিবন্ডিং চুল খোলা রাখায় দ্রুত ময়লা হয়। বেশি শ্যাম্পু

রিবন্ডিং করা চুলের সহজ কয়েকটি ঘরোয়া যত্ন2019-05-24T11:28:08+06:00

তোকমার অবিশ্বাস্য গুনাবলি ও কার্যকরী উপায়

তোকমা ছোট কালো রঙের একটি বীজ ,যা মূলত বিভিন্ন মিষ্টি পানীয় কিংবা শরবত তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। আয়ুর্বেদিক চিকিৎসায়ও তোকমার বীজ অন্যতম একটি উপাদান। এটি স্থানভেদে বিভিন্ন নামে পরিচিত। সবজা বীজ, মিষ্টি বাসিল, ফালুদা বীজ কিংবা তুর্কমারিয়া বা তোকমা বীজ হিসেবে পরিচিত। বহু গুণ রয়েছে এই বীজটির। চলুন জেনে নেয়া যাক তোকমার নানান গুন সম্পর্কেঃ ১. ওজন কমাতে দেহের ওজন কমাতে তোকমার জুড়ি নেই। পানিতে কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখলেই বীজটি (তোকমা) ফুলে ওঠে। এরপর সেই পানি কিংবা নানা মসলা দিয়েও তা সুস্বাদু করে পান করা যায়। তোকমার "ওমেগা থ্রি" ফ্যাটি অ্যাসিড দেহের জন্য অত্যন্ত উপকারী। এ ছাড়াও এর নানা উপাদান দেহের চর্বি কমাতেও সহায়তা করে।এতে রয়েছে প্রচুর আঁশ, যা বাড়তি ক্ষুধা দূর করে এবং পেট দীর্ঘক্ষণ পরিপূর্ণ

তোকমার অবিশ্বাস্য গুনাবলি ও কার্যকরী উপায়2019-05-23T12:41:16+06:00

গরমে রূপচর্চায় সতেজ থাকতে শসার প্যাকের জাদুকরি টিপস

যুগে যুগে রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে এসেছে নানা উপকরণ। এর মধ্যে শসা অন্যতম। গরমে কোনও কিছুই ভাল লাগে না করতে। এই গরমে মুখের সমস্যা হলে,জীবন হয়ে ওঠে আরও পেরাময়। তাই সহজেই আপনি আপনার মুখের যত্ন বা হালকা রূপচর্চায় নিজেকে সতেজ রাখতে পারেন শসা এর মাধ্যমে। আসুন জেনে নেই শসার প্যাক তৈরির নিয়মাবলী- কিউকাম্বার প্যাকঃ তৈলাক্ত ত্বক ১। তৈলাক্ত ত্বক নিয়ে সমস্যায় ভোগেন না এমন মানুষ নাই বলাই যায়। যাদের তৈলাক্ত ত্বক তারা প্রথমে ফেসওয়াস দিয়ে মুখ ধুয়ে নিবেন। তারপর শশার রস, আপেল সাইডার ভিনেগার, টমেটোর রস এবং এলভেরা জেল একসঙ্গে মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এতে করে ত্বকের তৈলাক্ত সমস্যা দূর হবে। ত্বকের রুক্ষভাব দূর ২। একটি শশা ব্লেন্ডারে ভালো মতো ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরী করতে হবে।

গরমে রূপচর্চায় সতেজ থাকতে শসার প্যাকের জাদুকরি টিপস2019-05-19T00:31:18+06:00

কোন কারনে কেন আপনি সানগ্লাস পরবেন

সানগ্লাস পরা এখন একটা ট্রেন্ড হয়ে গেছে। মডেল, অভিনেতা থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের চোখে ঘুরছে বাহারি সানগ্লাস।চোখকে সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মির হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সানগ্লাস ব্যবহার করা হয়। সূর্যের ক্ষতিকর অতি-বেগুনি রশ্মি চোখের ভেতরের অংশের ক্ষতি করে। এখানেই শেষ নয়।চোখের পাতা, চোখের চারপাশ, ত্বকে জ্বালাভাব, কালি পড়া, ভাঁজ পড়া ইত্যাদি সমস্যা থেকে বাঁচতে সানগ্লাস পড়া প্রয়োজন। কেন আপনি সানগ্লাস পরবেন? ১. ধূলোবালি থেকে রক্ষা পেতে : রাস্তাঘাটে বের হলেই অনেক ধূলাবালির সম্মুখীন হই। অনেকেরই আবার চোখে অ্যালার্জির সমস্যা থাকে। তারা অবশ্যই ধূলাবালির প্রভাব থেকে চোখকে বাঁচাতে চাইলে সানগ্লাস পরবেন।চোখে অনাকাঙ্খিত পোকামাকড় থেকেও রক্ষা পাওয়া যায়। ২. আলাদা রকমের ভাব দেখাতে : অনেকেই সানগ্লাস পরে ছবি তুললে আলাদা একটা ভাব আসে। যা তাঁকে

কোন কারনে কেন আপনি সানগ্লাস পরবেন2019-05-11T00:28:20+06:00

পারফিউম উপহার দেওয়ার সহজ ও ঝটপট টিপস

উৎসবে কিংবা নানা অনুষ্ঠানে সব জায়গাতে যাওয়ার সময় প্রথমেই যা মাথায় আসে তা হলো উপহার । যখন কারো জন্য উপহার কেনার পালা আসে তখন সেই উপহার নির্বাচন করা নিয়ে তৈরি হয় বিভ্রান্তি ।অনেকে উপহার দেয়া নিয়ে নাকানি চুবানি অবস্তাতেও পরেন।তাই তারা ভাবতে পারেন সহজ ভাবেই, সহজ কিছু। যেমন পারফিউম। পারফিউম একজন মানুষের খুব ব্যক্তিগত একটি প্রসাধনী। প্রতিটি মানুষেরই পারফিউমের পছন্দ ভিন্ন। আর তাই পারফিউম উপহার দেওয়াটাও খুবই অন্তরঙ্গ একটি কাজ। এ কারনে উপহার হিসেবে পারফিউম দেওয়ার আগে চিন্তাভাবনা করে নেওয়া উচিত। আপনার কাছে কোনো পারফিউম ভালো লাগলেই অন্যের কাছে তা ভাল না লাগতেও পারে। পারফিউম গিফট দেওয়ার আগে জেনে নিন কিছু টিপস- পারফিউম উপহার দেওয়ার ঝটপট টিপস ১) পোশাক থেকে আঁচ করুন অনেকের পোশাক থেকেই

পারফিউম উপহার দেওয়ার সহজ ও ঝটপট টিপস2019-05-03T19:54:39+06:00

গরমে পারফিউম কোথায় দিবেন না এবং কোথায় দিবেন

গরমকালে পারফিউম ছাড়া বাইরে বের হওয়ার কথা ভাবতে পারেন না অনেকে। পারফিউম এক বার চাপলে বা স্প্রে করলে নির্দিষ্ট পরিমান লিকুইড বের হয়, যা আমাদেরকে গরমে ঘামের দুরগন্ধ থেকে দূরে রেখে সুগন্ধি দেয়। তবে পারফিউম দিতে গিয়ে আমরা অনেকেই ভুল করে ফেলি। শরীরের ভুল জায়গায় পারফিউম দিয়ে ফেলি এবং পরে এর বাজে অভিজ্ঞতায় পরি যা মেনে নেয়া যায় না। এতে করে হিতে বিপরিত হয়ে যায়। এমনকি উল্টো এতে ক্ষতিই হতে পারে। পারফিউম তাই যেমন তেমন করে লাগালেই হবে না। তাই জেনে নিন শরীরের যেসব জায়গায় পারফিউম না দেওয়াই ভালো- যেখানে পারফিউম দিবেন নাঃ ১) চোখ চোখে পারফিউম দেওয়ার মতো বোকামি করবে না কেউ। কিন্তু ভুলেও যদি চোখে পারফিউম চলে যায় তাহলে দ্রুত অনেক বেশি করে

গরমে পারফিউম কোথায় দিবেন না এবং কোথায় দিবেন2019-05-02T00:14:20+06:00

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ কম বেশি সবারি আছে। ছেলে মেয়ে উভয়েরি এটা হয়। হটাত করে শরীর এর পরিবরতনের ফলে এটা হয়ে থাকে। এতে করে ঘাবড়াবার কিছু নেই। নারিকেল তেল, অ্যালোভেরা, চিনি আরও অনেক কিছু দিয়েই দূর করা যায় "স্ট্রেচ মার্ক" বা ত্বকের ফাটা দাগ। স্ট্রেচ মার্ক কেন হয়? অতিরিক্ত ওজন বেড়ে যাওয়া কিংবা অতিরিক্ত ওজন থেকে দ্রুত চিকন হওয়া, সন্তান প্রসবের পর, বয়সন্ধিকালে শরীরে ফাটা দাগ দেখা দিতে পারে। ত্বক দ্রুত আকৃতি পরিবর্তন করলে বা সংকুচিত বা প্রসারিত হলে নারী-পুরুষ উভয়েরই এই দাগ হতে পারে। এর পেছনে কোনো রোগের ভূমিকা নেই। ত্বক যখন প্রসারিত হয়, তখন তার "কোলাজেন" দুর্বল হয়ে যায় এবং ত্বকের উপরিভাগে ফেটে যায় বা চেরা দাগ তৈরি হয়।   স্ট্রেচ

স্ট্রেচ মার্ক বা ত্বকের ফাটা দাগ দূর করার ঘরোয়া উপায়2019-05-01T11:41:30+06:00

রুপচর্চায় গ্রীন টির কার্যকরী ও সহজ উপায়

বহুগুণে ভরপুর গ্রিন টি সম্পর্কে কম বেশি সবাই অবগত। পানীয় বা চা হিসেবে এটি সকলের নিত্যদিনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। সুস্থ দেহ, সুন্দর ত্বক ও ওজন কমাতে গ্রিন টি এখন অহরহ ব্যাবহার হয়ে আসছে। কিন্তু গ্রিন টি তৈরির পর সবাই টি ব্যাগটি ফেলে দেই,কিন্তু আপনারা হয়তো জানেন না যে এই ব্যাবহার করা টি ব্যাগটি আপনার কতটা কাজে আসতে পারে। রুপচর্চায় গ্রীন টি ব্যবহার করা গ্রিন টি ব্যাগ না ফেলে এটিকে দারুণ কিছু রূপচর্চার কাজে লাগাতে পারেন। চলুন জানে নেয়া যাক, সহজ কিছু কার্যকরী উপায়। ব্রণের সমস্যা সমাধানেঃ গ্রীন টি ব্রণের সমস্যা ট্রিটমেন্টের জন্য খুবই কার্যকরী একটি উপাদান। এটি ত্বকে কোন রকম ইরিটেশন বা ড্রাইনেস তৈরী করা ছাড়াই ব্রণ নির্মূল করে।আপনার আগের ত্বক ফিরিয়ে দেয়। টোনার: গ্রীন

রুপচর্চায় গ্রীন টির কার্যকরী ও সহজ উপায়2019-04-30T11:30:21+06:00