সময়মতো ত্বকের যত্ন নিলে অনেক সমস্যা থেকেই পরিত্রান পাওয়া যায়। এ জন্য দামী প্রসাধনী কিনতে হবে বা ব্যাবহার করতে হবে তা কিন্তু নয়। আপনার হাতের কাছের জিনিস দিয়েই করতে পারবেন ত্বকের যত্ন।আমাদের শরীরের চামড়ায় প্রতিনিয়ত মৃতকোষ উঠে।

মৃতকোষ গুলা উঠে গিয়ে সেখানে নতুন নতুন কোষ জন্মায়। মৃতকোষগুলো উঠে শরীরের উপরিভাগে ময়লার আস্তরণ তৈরি করে এবং এতে ত্বকের মসৃণটা কমে গিয়ে ত্বক খসখসে হয়ে যায়। মৃতকোষ পরিষ্কার করার জন্য স্ক্রাব হল সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি। এর জন্য চালের গুড়া ভাল স্ক্রাব এর কাজ করে।

রূপচর্চায় চালের গুঁড়া

১। চালের গুড়া ও দুধ এর মাস্কঃ

চালের গুড়া =( ২ টেবিল চামচ)
দুধ =(২ চা চামচ ),
লেবুর রস =(২ চা চামচ )
পরিমান মতো পানি মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন।

মিশ্রণটা পুরো মুখে আলতো করে লাগান। ১০ মিনিট পরে হাল্কা করে ঘষে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

সপ্তাহে ১/২ দিন ব্যবহার করবেন। এটা আপনি চাইলে সারা শরীরেও ব্যবহার করতে পারেন।
যাদের মুখ খুব বেশি তৈলাক্ত তারা দুধ এর বদলে শসার রস মিশিয়ে লাগাতে পারেন।

আবার যাদের শুষ্ক ত্বক তারা অনায়াসে দুধ ব্যবহার করতে পারেন । চাইলে কমলার রসও (২ চা চামচ) যোগ করতে পারেন। কমলার রস ত্বকের উজ্জ্বলতাকে বাড়াতে সাহায্য করে।

২।  অ্যালোভেরা মাস্ক ও চালের গুরাঃ

চালের গুড়া ও অ্যালোভেরা মাস্ক ত্বকের এক্সফলিয়েটিং প্যাক হিসেবে কাজ করে । এটি মুখের ত্বকের জন্যও খুব কার্যকরী।

এটি তৈরিতেঃ=
এক চা চামচ= চালের গুড়া,
দুই চা চামচ= অ্যালোভেরার রস নিয়ে মিক্স করে মুখে লাগিয়ে রাখতে হবে ২০ মিনিট।

পানি দিয়ে ভিজিয়ে হালকা করে হাতে ম্যাসাজ করে মাস্ক তুলে ফেলতে হবে। সপ্তাহে দুই বার করলেই ভাল ফলাফল পাবেন।

৩। চালের গুড়া, টমেটো ও মুলতানি মাটির মাস্ক:

চালের গুড়া, মুলতানি মাটি ও টমেটোর মাস্ক আমাদের ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করে। আর ত্বককে ভেতর থেকে অনেক বেশি উজ্জ্বল করে।

মাস্ক তৈরিতেঃ=
এক চা চামচ =চালের গুড়া,
আধা চা চামচ =মুলতানি মাটি,
অর্ধেকটা টমেটোর রস এক সাথে ভালো করে মেশাতে হবে।

মুখ ধুয়ে মাস্কটি মুখে ও গলায় লাগাতে হবে। ২০ মিনিট পর মুখ ধুয়ে ভাল করে পানি দিতে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই মাস্কটি সপ্তাহে ২/৩ দিন লাগাতে হবে।

৪।আটা ও দুধের মাস্ক ও চালের গুরাঃ

মাস্ক তৈরিতেঃ 

এক চা চামচ =চালের গুড়া,
এক চা চামচ= আটা,
এক চা চামচ= গুড়া দুধ/ দুই চা চামচ লিকুইড দুধ ভাল করে মিশাতে হবে।

মুখ ভাল করে ধুয়ে মিশ্রণটা মুখে ও গলায় লাগিয়ে রাখতে হবে ২০ মিনিট। হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে ভালো করে। সপ্তাহে এটা ২/৩ লাগাতে হবে মাস্কটা।

উপকারিতাঃ

১/ চালের গুড়া ব্রণের দাগ কমাতে সাহায্য করে।
২/ ত্বককে মসৃণ করে তোলে।
৩/ ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়িয়ে তোলে।
৪/ ব্ল্যাক হেডস কমায় দ্রুত।

সাবধানতা অবলম্বনঃ

জোরে জোরে ঘষতে যাবেন না এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। রোজ রোজ এটা করবেন না ,এতে ত্বকের উপকারের চাইতে ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।