ত্বকের ধরন অনুযায়ী ত্বকের যত্ন নেওয়াটা একটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ । সভ্যতার জন্মলগ্ন থেকে শুরু হয় মানুষের রূপচর্চার ইতিহাস। ইতিহাসের পাতা উল্টালে দেখা যাবে খৃষ্টপূর্ব ১০ হাজার বছর আগে মেসোলিথীস সভ্যতার মানুষদের ভেতর এই রূপ চর্চার প্রচলন ছিল। আর বর্তমান যুগেতো বলার  কোন অপেক্ষা রাখেনা। তবে আমরা প্রত্যেই ত্বকের যত্নের ক্ষেত্রে বিশেষ কয়েকটি সমস্যার সম্মুখিন হয়ে থাকি যেমন কার ত্বক তৈলাক্ত, কার শুস্ক, কারটা আবার  মিশ্রভাব থাকে। এই সমস্যাগুলি নিয়ে আলোচনা করবো আমরা।

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নঃ

১. তৈলাক্ত ত্বকের জন্য চালের গুড়া খুবিই কার্যকরি একটি উপাদান। আপনি স্ক্রাব হিসেবে চালের গুঁড়াকে ত্বকের জন্য ব্যবহার করতে পারেন। এটি ত্বকের মাত্রা অতিরিক্ত তেল শুষে নিয়ে ত্বককে রাখেবে তেল মুক্ত।

২. ত্বকের তৈলাক্ততা দূর করতে শশার রস অনেক ভালো কাজ করে। আপনি চাইলে শশার রস বানিয়ে ফ্রিজে রেখেও বরফ আকারে ত্বকে লাগাতে পারেন যা আপনার ত্বককে ভালো রাখবে।

৩. বাইরে বের হওয়ার আগে অবশ্যই অয়েল ফ্রী সান্সক্রিন ব্যবহার করাটা বুদ্ধিমানের কাজ হবে।

৪. ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করতে ২ চামচ টক দই এর সাথে ১ চামচ বেসন মিশিয়ে পেস্ট তৈরী করুন, এই পেষ্টটি মুখে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট ধরে রেখে দিন তারপর মুখ ধুয়ে ফেলবেন এতে করে ত্বকের তৈলাক্ত ভাব অনেকটাই কমে যাবে।

৫. ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর করতে ডিমের সাদা অংশকে মুখে লাগিয়ে, টিস্যু পেপার চেপে ১০ মিনিট পর্যন্ত রাখুন। শুকিয়ে গেলে  আলতোভাবে টিস্যু পেপার তুলে পানি দিয়ে ত্বক ভালভাবে পরিষ্কার করে নিন।

শুষ্ক ত্বকের যত্নঃ

১. ৩ চামচ আপেলের পেস্ট এর সহিত ১ চামচ লেবুর রস এবং  ২ চামচ মধু মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে ভালো ভাবে শুকিয়ে নিন তারপর  ঠান্ডা পানি দিয়ে  ধুয়ে ফেলুন।

২. শুস্ক ত্বকের ক্ষেত্রে দুধের সর একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বলে বহুল বিবেচিত। ময়দার সাথে দুধের সর মিক্সড করে পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগাবেন, এতেকরে ত্বক মসৃণ হবে ও শুষ্ক ভাব দূর হয়ে যাবে।

৩. প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে ১ চামচ গোলাপজল এর সঙ্গে এক চামচ গ্লিসারিন মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখবেন। কিছুক্ষণ পর পানি পরিষ্কার করে  ধুয়ে ফেলুন। এটা নিয়মিত ব্যবহার করলে ত্বকের শুস্কতা অনেক কমে যাবে।

৪. শুস্ক ত্বকের জন্য এলোভেরা জেল খুবই উপকারী। গোসল করবার পর এলভেরা জেল দিয়ে মুখমণ্ডল আলতোভাবে ম্যাসাজ করবেন। অথবা গোসলের ১০ মিনিট পূর্বে এলভেরার পাতার সাহিত ১ চামুচ মধু মিশিয়ে মুখে মেখে কিছুক্ষণ রাখুন। তারপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

মিশ্র ত্বকের যত্নঃ

১. মাঝে মাঝে গরম পানির ভাপ নেওয়া ভালো। চাইলে পানিতে নিম পাতা মেশাতে পারেন।

২. রাতে শোবার আগে ভালভাবে অবশ্যই মুখ ধুতে হবে। মুখে যদি মেকাপ থাকে তাহলে তা ভালোভাবে তুলে ফেলাটা জরুরী।

৩. বাইরে থেকে এসে সবসময় মুখ ভালভাবে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিবেন।

৪. বেশি করে পানি খাওয়া ভালো। ত্বক সতেজ থাকে। খাবারে ভিটামিন-সি, ভিটামিন-এ, ভিটামিন-ডি রাখা দরকার।

৬. ১ চামচ কাঁচা হলুদ বাটা সাথে ১চামচ ময়দা এবং ১/২ চামচ দুধের সর এক সঙ্গে  মিশিয়ে ১৫ মিনিট রাখবেন তারপর প্রথমে হালকা গরম পানি দিয়ে, পরে ঠান্ডা পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

৭. ২ চামচ শসার রস এর সাথে ৫-৬ ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মুখে মেখে ১৫ মিনিট পর্যন্ত রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে  ধুয়ে ফেলুন।

 সকল প্রকার টিপস সম্পর্কে জানতে চোখ রাখুন টপ টিপস।